এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মিড-ডে মিলের চাল চুরির অভিযোগে আটক প্রধান শিক্ষক, তুলকালাম অধিকারী-গড়ে

মিড-ডে মিলের চাল চুরির অভিযোগে আটক প্রধান শিক্ষক, তুলকালাম অধিকারী-গড়ে

শিক্ষকরা সমাজ গড়ার কারিগর। তাদের ওপরই স্কুল পরিচালনার মূল ভার থাকে। আর এবার কিনা সেই শিক্ষকদের বিরুদ্ধেই উঠল মিড ডে মিলের চাল চুরির অভিযোগ। সূত্রের খবর, সোমবার কাঁথি 1 ব্লকের রাইপুর-পশ্চিমবাড় পঞ্চায়েতের নাটদিঘি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং বেলদা থানার দেউলা বাপুজি শিক্ষাসদনে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাল চুরির অভিযোগে চরম চাঞ্চল্য ছড়াল।

জানা গেছে, এই নাটদিঘী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সহ মোট ছয়জন শিক্ষক রয়েছেন। আর ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা 110 জন। এই স্কুলের সব রুমের চাবি মূলত প্রধান শিক্ষক আরিফ আহমেদ খানের কাছেই থাকে। কিন্তু সোমবার ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদ হঠাৎই নাকি সেই প্রধান শিক্ষক স্কুলে এসে 50 কেজি চালের বস্তা গোডাউন থেকে বের করে নিজের স্কুটিতে চাপিয়ে নিচ্ছিলেন। আর এই ঘটনা তখন চোখে পড়ে কিছু স্থানীয় ক্লাব সদস্যের।

স্কুলের কাছে কালীপুজোর জন্য রবিবার রাতে মণ্ডপের ভেতরে ঘুমোচ্ছিলেন কিছু ক্লাব সদস্য। আর তারাই তখন হাতেনাতে ধরে ফেলেন সেই প্রধান শিক্ষককে। পাশাপাশি এই ঘটনায় জড়ো হয়ে যান অনেক গ্রামবাসীরাও। এমনকি এই চাল চুরির অভিযোগে একটি রুমেও আটকে রাখা হয় সেই প্রধান শিক্ষককে।

এদিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেই স্কুলে আসেন জয়েন্ট বিডিও ও পুলিশ আধিকারিকরাও। স্কুটিতে চাপানো চালের সাথে গুদাম ঘরে রাখা চালের নমুনাও মিলিয়ে দেখেন জয়েন্ট বিডিও। এদিন এই প্রসঙ্গে এলাকার বিডিও লিপন তালুকদার বলেন, “জয়েন্ট বিডিওকে এলাকায় পাঠানো হয়েছে। তার কাছ থেকে রিপোর্ট পেলেই যদি কেউ এই ঘটনায় অভিযুক্ত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

তবে তাকে পুরোপুরি ফাঁসানো হয়েছে বলে এদিন দাবি করেন সেই অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক। এদিকে নাটদিঘী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যখন প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে এহেন চাল চুরির অভিযোগ উঠছে ঠিক তখনই একই অভিযোগে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল বেলদা থানার দেউলা বাপুজি শিক্ষাসদনেও।

জানা যায়, পুজোর পরে এদিন প্রথম স্কুল খোলার দিনেও সেই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাল চুরির অভিযোগ এনে স্থানীয় গ্রামবাসীরা সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাকে স্কুলে ঢুকতে বাধা দেয়। অভিযোগ, স্থানীয় একটি ক্লাবের দুর্গাপূজা উৎসবের জন্য মিড ডে মিলের 6 বস্তা চাল চুরি করে তা সেই উৎসব কমিটিকে দিয়ে দিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। আর এই পুরো ঘটনা জানা সত্ত্বেও কোনো পদক্ষেপ নেননি প্রধান শিক্ষক।

তবে গ্রামবাসীদের এই অভিযোগকে সম্পূর্ণ নস্যাৎ করে সেই স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিশিকান্ত কুইলা বলেন, “উৎসব কমিটি আমার কাছে আবেদন করায় আমি তাদের সম্মানের খাতিরে এক বস্তা চাল দিয়েছিলাম। কিন্তু স্কুল ছুটির পর তারা সেই চাল ফেরত দেবে বলে কোথাও দিয়েছে। তাই এই চাল চুরির অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সব মিলিয়ে পুজোর ছুটির পর স্কুল খোলার দিনেই প্রধান শিক্ষকদের বিরুদ্ধে মিড ডে মিলের চাল চুরির অভিযোগে এবার রণক্ষেত্র হয়ে উঠল পূর্ব মেদিনীপুরের অধিকারী গড়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!