এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > চরম বিপাকে বিধাননগর পৌরসভার মেয়র, পেলেন আইনি নোটিশ, জেনে নিন বিস্তারিত

চরম বিপাকে বিধাননগর পৌরসভার মেয়র, পেলেন আইনি নোটিশ, জেনে নিন বিস্তারিত

বর্তমানে দলে তীব্র কোণঠাসা তিনি। তার একের পর এক দল বিরোধী মন্তব্যে তাকে মেয়র পদ থেকে সরানোর জন্য অনাস্থা প্রস্তাব এনেছে তৃণমূল কাউন্সিলররা। কিন্তু এই অনাস্থা প্রস্তাবের পরও বিভিন্ন সময়ে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে তার আলাপচারিতা বিতর্ক বাড়িয়ে দিয়েছিল।

যার ফলে ঘাসফুল শিবির তার সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখতে শুরু করেছিল। এমনকি সব্যসাচী দত্ত এটা ঠিক করছে না বলেও জানিয়ে দিতে দেখা গিয়েছিল কোলকাতা পৌরসভার মেয়র তথা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে। আর দলের অন্দরে যখন তিনি কার্যত কোণঠাসা, ঠিক তখনই এবার সেই বিধাননগর পৌরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্তকে আইনি নোটিশ পাঠালেন বিধাননগরের কাউন্সিলর সুভাষ বসুর স্ত্রী শর্মিষ্ঠা বসু ।

কিন্তু কেন হঠাৎ সব্যসাচী দত্তকে আইনি নোটিশ পাঠালেন এই পৌরসভারই এক কাউন্সিলর পত্নী! প্রসঙ্গত, সম্প্রতি এই বিধাননগর পৌরসভার কাউন্সিলর সুভাষ বসুর বিরুদ্ধে প্রমোটিং নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিলেন বিধাননগর পৌরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্ত।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই সুভাষ বসুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সব্যসাচী দত্ত তা বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে দিচ্ছেন, এই অভিযোগে তার সম্মানহানি হচ্ছে বলে পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন সেই সুভাষ বসু। এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “যেসব ভিত্তিহীন অভিযোগ উনি ছড়িয়ে দিচ্ছেন, তাতে সামাজিকভাবে মর্যাদাহানিকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হচ্ছে। একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে ইমেজে দাগ পড়ছে। তাই আমার স্ত্রী বাধ্য হয়ে মেয়রকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। আমার বিরুদ্ধে এসব প্রমোটিংয়ের অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে মেয়রকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে।”

আর একদিকে মেয়র পদ নিয়ে সংকটজনক অবস্থা, আর অন্যদিকে এবার তার পৌরসভারই এক কাউন্সিলর তার বিরুদ্ধে অপমানের অভিযোগ তুলে স্ত্রীকে দিয়ে আইনি নোটিশ পাঠানোয় রীতিমতো বিপাকে পড়তে চলেছেন সব্যসাচী দত্ত। সব মিলিয়ে এবার আইনি নোটিশ পাওয়ার পর বিধাননগর পৌরসভার মেয়র ঠিক কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!