এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > মাঝেরহাট কান্ডে এবার পূর্তমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবী তুললেন মেয়র

মাঝেরহাট কান্ডে এবার পূর্তমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবী তুললেন মেয়র

চলতি মাসেরই ৪ তারিখ ঘটে যায় মাঝেরহাট সেতু বিপর্যয়। ঘটনার জেরে খুব বেশি ক্ষয়ক্ষতি না হলেও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে এবং বেশ কিছুজন আহতও হন। তবে আচমকা সেতু ভেঙে পড়ার কারণে রাজ্যে শাসকদলকে দফায় দফায় আক্রমণ শানিয়েছে কংগ্রেস, বিজেপি এবং বামেরা। কার গাফিলতিতে ফের সেতু বিপর্যয় হল রাজ্যে? তৃণমূল সরকারকে বিরোধীদের এ কড়া প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে বারবার।

আন্দোলন,মিছিল,মিটিং সবেই এই ইস্যুকে হাতিয়ার করে বিরোধীরা গর্জে উঠেছেন। ‘প্রশাসন জবাব দাও’ এটাই ছিল বিরোধীদের মুখের বুলি। রাজ্য রাজনীতিতে এই ইস্যুটিই লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি পর্বকে আরো সরগরম করে রেখেছে। তবে এবার এই বিতর্কে নতুন মোড়ের খোঁজ পাওয়া গেল। জল্পনা বাড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী কাল নবান্নে বসেই বললেন,মাঝেরহাট ব্রিজ ভাঙার জন্য পূর্ত দপ্তরের দায় রয়েছে।

এদিন নবান্নে একটি সাংবাদিক সম্মেলন হয় রাজ্যসরকারের। সেখানেই পূর্ত দপ্তরের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের পদত্যাগ দাবী করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোলা চিঠি দিলেন শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। আর নেত্রীও ব্রিজ ভাঙার নেপথ্যে পূর্ত দপ্তরের গাফিলতি আছে বলেই মেনে নিলেন। সাংবাদিক বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী বললেন,মাঝেরহাট বহু পুরানো একটি ব্রিজ। এটা খেয়াল রাখার দায় ছিল পূর্তদপ্তরের। তাঁরা নিজেদের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করেননি। এটা তাঁরা অস্বীকার করতে পারবেন। আজ তাঁদের এই গাফিলতির জন্যেই বিপর্যয়ের সম্মুখীন হতে হল মানুষের। যখন ব্রিজটিতে ত্রুটি দেখা দিয়েছিল তখনই মেরামত করা উচিৎ ছিল তাঁদের। নতুন করে ফের ব্রিজ তৈরির সিদ্ধান্তে সীলমোহর পড়েছে বলেই ইঙ্গিত দিলেন এদিন অশোকবাবু।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এবং অরূপ বাবুকে টার্গেট করে বললেন,”নৈতিক দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীকেই নিতে হবে। ওই মন্ত্রীকে ক্লিনচিট দেওয়ার চেষ্টা মানুষ ভালোভাবে নেবেন না।” এদিকে এতোদিন বিরোধীরা ব্রিজ ভাঙার ইস্যুতে রাজ্যসরকারের কাছে কৈফিয়ত চাইছিল। আর এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পূর্ত দপ্তরকে এরজন্য প্রকাশ্যে দায়ী করে বিতর্কের মোড় অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিলেন। এ প্রসঙ্গে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া না জানালেও তীব্র গুঞ্জন শুরু হয়েছে বিরোধীমহলে,এমনটাই জানা যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!