এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েতের ফলে লোকসভা আসন রক্ষা নিয়ে বাড়ছে চিন্তা, আপৎকালীন বৈঠকে মৌসম

পঞ্চায়েতের ফলে লোকসভা আসন রক্ষা নিয়ে বাড়ছে চিন্তা, আপৎকালীন বৈঠকে মৌসম

মালদা জেলা মানেই কংগ্রেসের গড় ছিল, তার থেকেও বেশি করে ছিল গনি খান চৌধুরীর পরিবারের গড়। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে প্রবল তৃণমূল ঝড়ের মধ্যেও জেলার দুটি লোকসভা আসন দখলে রাখে কংগ্রেস। ২ বছর পরের বিধানসভা নির্বাচনেও রাজ্যজুড়ে ঘাসফুল-ঝড় চললেও জেলার ১২ টা বিধানসভা আসনে দাঁত ফোটাতে পারেনি তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু সেই গড়েও এবার চিন্তার একরাশ কালো মেঘ কংগ্রেস শিবিরে। সদ্য-সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শাসকদলের সন্ত্রাসের অভিযোগ উঠলেও মালদা জেলার চিত্রটা ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। সেখানে মনোনয়ন জমা দেওয়া থেকে ভোটগ্রহণ – সবকিছুই হয়েছিল প্রায় স্বাভাবিকভাবে। কিন্তু পঞ্চায়েতের ফল বেরোতেই কংগ্রেসের ফল এই জেলায় শুধু খারাপ হয় নি, তা রীতিমত ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। আর তাই এবার লোকসভা আসন রক্ষা রীতিমত চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে কংগ্রেস শিবিরের কাছে।

আর তাই পঞ্চায়েতের ফলাফল বিশ্লেষণ ও লোকসভা নির্বাচনের রণকৌশল ঠিক করতে আপাতকালীন ভিত্তিতে বৈঠক ডাকলেন সাংসদ তথা জেলার দাপুটে নেত্রী মৌসম বেনজির নূর। কংগ্রেস সূত্রে জানা গেছে, আগামীকাল প্রথমে সাংসদ, বিধায়ক ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে একটি বৈঠক হবে। পরে অঞ্চল সভাপতি ও তৃণমূল স্তরের নেতাদের নিয়ে আরেকটি বৈঠক হবে। এই দুই বৈঠকের নির্যাস নিয়ে মালদহ জেলা কংগ্রেস সভাপতি মৌসম বেনজির নূর দিল্লিতে গিয়ে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক করবেন। কংগ্রেসের চিন্তার মূল কারণ দুটি – একদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের আগ্রাসনে দলের নেতা-কর্মী নাম লেখাচ্ছে ঘাসফুল শিবিরে। অন্যদিকে পিছন থেকে হঠাৎ করে উঠে এসে পাপড়ি মেলতে শুরু করেছে পদ্ম শিবির। ২০১৩ এর পঞ্চায়েত নির্বাচনে মালদহ জেলা পরিষদ দখল করেছিল কংগ্রেস, কিন্তু মাঝপথেই তা হাতবদল হয়ে যায় ঘাসফুল শিবিরের কাছে। সেই হাতবদল যে ‘অনৈতিক’ ছিল তা প্রমানে মরিয়া ছিল কংগ্রেস নেতারা, কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে প্রত্যাশিত ফলের ধারেকাছেও পৌঁছায়নি বাস্তব ফলাফল। এর মধ্যেই নীচুতলার কর্মীরা তৃণমূল-বিরোধী লড়াইয়ে বেশি আস্থা রাখছেন গেরুয়া-শিবিরের উপরেই। ফলে লোকসভা নির্বাচনের আগে রীতিমত সিঁদুরে মেঘ দেখছেন জেলা নেতৃত্ত্ব। আর তাই সবমিলিয়ে আগামীকালের বৈঠক বেশ উত্তপ্ত হতে পারে বলে জেলা-নেতৃত্ত্বের ধারণা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!