এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > মতুয়া ভোটকে কাছে টানতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সভা, ১০ গুণ লোকের পাল্টা হুংকার তৃণমূলের

মতুয়া ভোটকে কাছে টানতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সভা, ১০ গুণ লোকের পাল্টা হুংকার তৃণমূলের

লোকসভা নির্বাচন এগিয়ে আসছে। আর তাই সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের সমর্থন পেতে মরিয়া রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিরোধীদল বিজেপি। ইতিমধ্যেই বাংলায় নিজেদের ভোটব্যাংককে আরো শক্তিশালী করতে সভার অনুমতি না থাকা সত্ত্বেও নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জের জয়ঘাটা মাজদিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের স্বর্ণখালী হাইস্কুল ময়দানে একটি সভা আয়োজন করেছিল কৃষ্ণগঞ্জ ব্লক মতুয়া মহাসংঘ শাখা।

যেখানে এদিকে উপস্থিত ছিলেন, বিজেপির কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী গিরিরাজ সিং, বিজেপি ঘনিষ্ঠ মতুয়া নেতা শান্তনু ঠাকুর এবং রাজ্য বিজেপি নেতা মুকুল রায়। মূলত রাজনৈতিক দিক থেকে এই কৃষ্ণগঞ্জ ব্লক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে নির্দল এবং সিপিএম এর “নাগরিক মঞ্চ” থেকে এখানে প্রার্থী দেওয়া হলেও সেখানে নিজেদের আধিপত্য বজায়ে মরিয়া হয়ে ওঠে গেরুয়া শিবির। যেখানে শাসক দল তৃণমূল এবং বিজিপির মধ্যে শেষ শেষ পর্যায়ে টাই হয়ে যায়। আর এদিন সেই অঞ্চলকেই সভাস্থল হিসেবে বেছে নিয়েছিলো তারা।

অভিযোগ, প্রথমে প্রশাসন এবং স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে অনুমতি নিলেও পরে সেই অনুমতি বাতিল করা হয়। যা নিয়ে এদিন তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কৃষ্ণগঞ্জ ব্লক মতুয়া মহাসঙ্ঘের শাখা সভাপতি মৃণালকান্তি বিশ্বাস। কিন্তু অনুমতি দিয়েও কেন পরক্ষনেই বাতিল করা হলো সেই সভার অনুমতি?

এদিন এই প্রসঙ্গে কৃষ্ণনগর সদর মহকুমার শাসক অম্লান তালুকদার বলেন, “যে স্কুলের মাঠে সভার অনুমতি ছিল তা পরিচালন সমিতিই পরে বাতিল করে।”এদিকে এদিন এই সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিজেপির কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী গিরিরাজ সিং বলেন, “যতদিন কেন্দ্রে বিজেপি এবং নরেন্দ্র মোদির সরকার আছে ততদিন মতুয়াদের নাগরিকত্ব কেউ কেড়ে নিতে পারবে না।”

রাজনৈতিক মহলের মতে, এনআরসি নিয়ে যেভাবে প্রথম থেকে বিজেপির প্রতি অলআউট অ্যাটাকে অবতীর্ণ হয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, এদিন মতুয়াদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে সেই মতুয়া ভোটব্যাঙ্ক আদতে নিজেদের দখলেই আনতে চাইল গেরুয়া শিবির। তবে ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতির ব্যাপারে তারা যে কোনো রকম কার্যকলাপ করেননি এদিন সেই দাবি করেন বিজেপির নদীয়া দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি জগন্নাথ সরকার। পাল্টা বিজেপির কৃষ্ণগঞ্জের এই সভার জবাব দিয়েছে তৃণমূলও।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এ প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূলের সভাপতি গৌরীশংকর দত্ত গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশ্যে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, “ওরা বারবার মতুয়াদের দলে টানার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। যেখানে ওরা আজ সভা করছে সেখানেই আমরা মতুয়াদের নিয়ে দশগুণ লোকের সভা করব।” সব মিলিয়ে এখন মতুয়া মহাসঙ্ঘেকে নিয়ে রাজ্যের শাসক এবং বিরোধীর এই দড়ি টানাটানিতে শেষ পর্যন্ত এই ভোট ব্যাংক কার দখলে থাকে তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী লোকসভা নির্বাচনের ভোটের বাক্স খোলা পর্যন্ত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!