এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মতুয়া মহাসঙ্ঘের দখল নিতে শান্তনু ঠাকুরদের ট্রাম্পকার্ড হতে চলেছেন মমতাবালা ঠাকুরের সতীন? বাড়ছে জল্পনা

মতুয়া মহাসঙ্ঘের দখল নিতে শান্তনু ঠাকুরদের ট্রাম্পকার্ড হতে চলেছেন মমতাবালা ঠাকুরের সতীন? বাড়ছে জল্পনা

রাজ্যের রাজনৈতিক উত্থান-পতনে একসময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল উত্তর 24 পরগনার গাইঘাটার ঠাকুরনগরের ঠাকুর পরিবার। প্রায় প্রতিটি রাজনৈতিক দলই এই ঠাকুর পরিবারের মতুয়া মহাসঙ্ঘের প্রয়াত বড়মা বীণাপাণি দেবী শরণাপন্ন হতেন। কিন্তু হঠাৎই সম্প্রতি শারীরিক অসুস্থতার কারণে সেই বড়মা বীণাপাণি দেবীর মৃত্যুতে এখন বীণাপাণি দেবীর পর কে সেই ঠাকুর পরিবারের মতুয়া মহাসঙ্ঘের সঙ্ঘাধিপতি হবেন তা দিয়েই শুরু হয়েছে প্রবল জটিলতা।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে ঠাকুরবাড়ি দুই ভাগে বিভক্ত। একদিকে রয়েছেন ঠাকুর পরিবারের অন্যতম সদস্য তথা তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ মমতাবালা ঠাকুর। আর অন্যদিকে রয়েছেন বিজেপির তরফে সেই ঠাকুর পরিবারেরই আরেক সদস্য মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং তার পুত্র শান্তনু ঠাকুর।

ফলে বড়মা বীণাপাণি দেবীর মৃত্যুর পর বৃহস্পতিবারই সাংবাদিক সম্মেলন করে সারা ভারত মতুয়া সংঘের সভাপতি নন্দদুলাল মহন্ত জানিয়ে দেন যে, বড়মার পারলৌকিক কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত সেই মতুয়া মহাসঙ্ঘের সঙ্ঘাধিপতির দায়িত্ব সামলাবেন সেই মমতাবালা ঠাকুরই। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন শান্তনু ঠাকুর। এদিন তিনি বলেন, “বড়মার পদে কে বসবেন তা দলপতি, সাধু, গোঁসাই এবং পাগলরা ঠিক করবেন।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

তাঁরা সকলেই এই পদে মতুয়া মহাসঙ্ঘের মমতাবালা ঠাকুরের সতীন অর্থ্যাৎ প্রয়াত কপিল কৃষ্ণ ঠাকুরের প্রথম পক্ষের স্ত্রী অমলা ঠাকুরকেই চাইছেন বলেও দাবি করেন সেই শান্তনু বাবু। আর শান্তনু ঠাকুরের এই দাবিতেই শুরু হয় জটিলতা। একাংশের মতে, তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ মমতা বালা ঠাকুরকে সঙ্ঘাধিপতির পথ থেকে সরানোর জন্য এ যেন মোক্ষম চাল দিলেন শান্তনু ঠাকুর।

আর তাইতো তীব্র কৌশল অবলম্বন করে সেই মমতাবালা ঠাকুরকে চাপে ফেলে দিয়ে তারই প্রয়াত স্বামী কপিলকৃষ্ণ ঠাকুরের প্রথম স্ত্রী অর্থাৎ মমতা বালা ঠাকুরের সতিন অমলা ঠাকুরের নাম সঙ্ঘাধিপতির পদের জন্য প্রস্তাব করলেন তিনি। তবে এই ব্যাপারে বিন্দুমাত্র ভাবিত নয় সেই মমতা বালা ঠাকুর।

এদিন তিনি বলেন, “2001 সাল থেকে বড়মার সঙ্গে দিদির সম্পর্ক মা এবং মেয়ের মতো। দিদি বড়মাকে তার মানে শ্রদ্ধা করে এসেছেন। প্রতিটি সময় মুখ্যমন্ত্রী বড়মার খবর নিতেন। আমরা দিদির কাছে চিরকৃতজ্ঞ।” এদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে বেআইনিভাবে মমতাবালা ঠাকুরকে মতুয়া মহাসঙ্ঘের সঙ্ঘাধিপতি করা হয়েছে বলে শান্তনু ঠাকুরের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা এই ব্যাপারে মুখ খুললেন উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক।

তিনি বলেন, “কে আসল আর কে নকল, তা সময় এলেই সকলে বুঝতে পারবেন।” সব মিলিয়ে এবার বড়মা বীনাপানি দেবীর প্রয়াণে মতুয়া মহাসঙ্ঘের সঙ্ঘাধিপতি পদে সেই ঠাকুর পরিবারেরই অন্যতম সদস্য তথা তৃণমূল সাংসদ মমতাবালা ঠাকুরকে না মেনে পাল্টা প্রয়াত কপিলকৃষ্ণ ঠাকুরের প্রথম পক্ষের স্ত্রী অমলা ঠাকুরকে মতুয়া মহাসঙ্ঘের সঙ্ঘাধিপতি পদে বসানোর দাবি জানালেন ঠাকুর পরিবারের আরেক সদস্য বিজেপির শান্তনু ঠাকুর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!