এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সাম্রাজ্য হারিয়ে ‘শেষ আশ্রয়ে’ গেলেন সস্ত্রীক মানিক সরকার

সাম্রাজ্য হারিয়ে ‘শেষ আশ্রয়ে’ গেলেন সস্ত্রীক মানিক সরকার

ত্রিপুরায় কয়েক দশকের বাম শাসনের অবসান হওয়ায় কার্যত রাজ্যপাট হারা হলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার। মুখ্যমন্ত্রীত্ব যাওয়ার ফলে তাঁকে ছাড়তে হয়েছে সরকারী আবাসন। মাণিক বাবুর নিজের কোনো বাড়ি না থাকায় স্ত্রী পাঞ্চালিদেবীকে নিয়ে এখন আগরতলায় সিপিএম-এর দলীয় সদর দপ্তরের উপরের, দু’কামরার একটি ফ্ল্যাটে তিনি বাস করছেন। উল্লেখ্য খুব সাধারণ জীবন যাপনে বিশ্বাসী ও অভ্যস্ত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মাণিকবাবু নিজের পৈতৃক বাড়ি তাঁর বোনকে দিয়ে দিয়েছেন । দল নির্বাচনে পরাজিত হলেও নিজের আসনে জয়ী মাণিক বাবু এমএলএ হস্টেলেও থাকতে রাজি হননি । এ বিষয়ে ত্রিপুরার সিপিএম সচিব বিজন ধর জানালেন, ” ত্রিপুরার সিপিএম নেতারা সাধারণ জীবন যাপন করেন। সেজন্য দলীয় কার্যালয়ে এধরনের ব্যবস্থা আছেই। ” প্রাক্তন সরকারী কর্মচারী হওয়ার সুবাদে পাঞ্চালি সরকারের আগরতলাতে নিজস্ব একটি সম্পত্তি আছে। কিন্তু সেই সম্পত্তি প্রোমোটারের হাতে যাওয়ায় বর্তমানে ঝামেলায় জড়িয়েছেন পাঞ্চালি দেবী। সদ্য মুখ্যমন্ত্রী পদে আসিন বিপ্লব দেব যদিও স্পষ্ট ভাবে বলেছেন, “প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সরকারি বাসভবন এবং প্রয়োজনীয় সুবিধা পাবেন, যা তাঁর প্রাপ্য। বিরোধী দলনেতাও মন্ত্রিসভার সদস্যের মতোই সম্মান পাবেন। বিরোধী দলের অন্য বিজয়ী বিধায়করা এমএলএ হোস্টেলে থাকতে পারবেন।” বিপ্লব বাবু নতুন ত্রিপুরা গঠনে মানিক সরকার এবং তাঁর দলের সহযোগিতা নিয়েই চলবেন বলে জানিয়েছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য নির্বাচনে নিজেদের আসনে পরাজয়ের পর নিজেদের পৈতৃক বাড়িতে ফিরে গিয়েছেন। আর বাকিরা রয়েছেন এমএলএ হোস্টেলে।

Top
error: Content is protected !!