এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতার চিন্তা বাড়িয়ে জনসংযোগ বাড়াতে নয়া পদক্ষেপ বিজেপির ,জেনে নিন বিস্তারিত

মমতার চিন্তা বাড়িয়ে জনসংযোগ বাড়াতে নয়া পদক্ষেপ বিজেপির ,জেনে নিন বিস্তারিত

শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জীর জন্মদিবস উপলক্ষে সদস্য সংগ্ৰহ অভিযান চলছে। এর পাশাপাশি মানুষের আরো কাছে পৌঁছোনর জন্য নতুন কর্মসূচি গ্রহণ করতে চলেছে রাজ্য বিজেপি। জনসংযোগ বাড়ানোর এই নতুন প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে বিস্তারক কর্মসূচি।যা আগামী ২৩ জুলাই থেকে শুরু করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, রাজ্য বিজেপির নেতারাই বিস্তারকের ভূমিকা পালন করবেন। তাঁরা প্রত্যেকেই নিজের এলাকা থেকে দূরে কোথাও গিয়ে জনসংযোগ বাড়ানোর চেষ্টা করবেন। এই কাজে তাঁর সহায়ক হবেন সেই এলাকার স্থানীয় বিজেপি নেতারা।

এই কর্মসূচিতে দলীয় নেতৃত্ব প্রথমে সেই এলাকার বিশিষ্ট মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন।প্রথমে তাঁকে ভারতীয় জনতা পার্টির নীতি, আদর্শ ও দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের ভূমিকার কথা সবিস্তারে জানাবেন। সেই ব্যক্তির থেকে সদর্থক সাড়া পাওয়া গেলে নেতৃত্বের তরফে তাঁকে বিজেপিতে যোগদান করার অনুরোধ করা হবে। এর পর ওই বিশিষ্ট ব্যক্তির মাধ্যমে ওই এলাকার আরো কিছুসংখ্যক মানুষকে পদ্ম শিবিরে যোগদান করানো সম্ভব হবে বলে আশাবাদী দলের রাজ্য নেতারা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি এই রাজ্য থেকে ১৮ টি আসন লাভ করেছে যা এই রাজ্যের ক্ষেত্রে বিজেপির সাফল্যের হিসেবে একরকম নজিরবিহীন। এখন থেকেই বিজেপি নেতৃত্ব ২১ এর বিধানসভা জয়ের স্বপ্ন দেখছে। ২১ এ নবান্ন দখল করতে হলে সদস্য ও সংগঠন দুটোই বাড়ানো প্রয়োজন। সেই উদ্দেশ্যেই বিজেপির তরফে এমন কর্মূসূচি নেওয়া হচ্ছে।বিজেপি সূত্রের খবর আগামীদিনে পশ্চিমবঙ্গে ১ কোটি সদস্য তৈরি করার লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। তবে বিভিন্ন দল ছেড়ে নতুন যারা দলে আসছেন তাঁদের প্রতি নজর রাখার পরিকল্পনাও দলের তরফে নেওয়া হচ্ছে।

এই কর্মসূচি প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিকদের জানান , ‘বহু আগে থেকেই এই স্ক্রিনিং কমিটি ছিল। এই কমিটি নতুন কিছু নয়। দলে করা আসছেন, তা দেখার দায়িত্ব থাকে এই কমিটির।’ সাধারণত, যেসকল বিশিষ্ট ব্যক্তিদের বিস্তারক হিসেবে নেওয়া হবে তাঁদের সামনে ৭ দিনে ১০০ জন নতুন সদস্য যোগদানের লক্ষ্যমাত্রা থাকবে।

Top
error: Content is protected !!