এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতার চাপ বাড়িয়ে ভোটের মুখে কাঁথি নিয়ে রিপোর্ট চাইতে পারে নির্বাচন কমিশন

মমতার চাপ বাড়িয়ে ভোটের মুখে কাঁথি নিয়ে রিপোর্ট চাইতে পারে নির্বাচন কমিশন



লোকসভা ভোটের মুখে ফের অভিযোগের কাঁটা ঘুরল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে। পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে অমিত শাহের সভা পরবর্তীতে হিংসা প্রদর্শনের অভিযোগ করে তৃণমূলে বিরুদ্ধে নালিশ জানিয়েছে বিজেপি। এই অভিযোগের সত্যতা যাচাই করার জন্যে আজ শাসকদলের কাছে সেই সংক্রান্ত রিপোর্ট চাইতে পারে নির্বাচন কমিশন।

জেলার সমস্ত পুলিশ সুপার এবং জেলা শাসক সঙ্গে বৈঠকে বসবে নির্বাচন কমিশন। কাঁথির ঘটনা নিয়ে প্রয়োজনীয় রিপোর্ট তৈরিই রয়েছে প্রশাসনের আধিকারিকদের তরফ থেকে,এমনটাই খবর পাওয়া গিয়েছে।

মঙ্গলবার পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে সভা ছিল জাতীয় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের। প্রতিবারের মতো এবারও তিনি মঞ্চে বক্তব্য রাখতে উঠে তৃণমূল কংগ্রেস এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাক্যবাণে বিদ্ধ করেন। অমিত শাহের সভা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ওইস্থানে হামলা করে তৃণমূল। বিজেপি কর্মীদের বাইক ভাঙচুরের পাশাপাশি তাঁদের দলীয় কার্যালয়েও আগুন ধরিয়ে দেন তৃণমূলের দুষ্কৃতিরা৷ এমনটাই অভিযোগ।

এরপর বিজেপি নেতা-কর্মীরা বাধা দিতে গেলে মুহূর্তেই রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে এলাকা। ভয়াভয় সংঘর্ষের জেরে দুইপক্ষেরই বেশ কিছু কর্মী-সমর্থক আহত হন। বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ পুলিশের উপস্থিতিতেই এই সন্ত্রাসমূলক কাজ করেছে তৃণমূল,এমনটাই অভিযোগ পদ্মশিবিরের।

[content_block id=3910

এরপর সংঘর্ষে নেমে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা কাঁথির রূপশ্রী মোড়ের কাছে তৃণমূলের দুটি পার্টি অফিস ভাঙচুর চালায় বলেও অভিযোগ জানায় তৃণমূল। এই ঘটনার জেরে ১১ জন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজ দেখেই বিজেপি কর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এরপর তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয় বিজেপি। সেই ঘটনারই আজ রিপোর্ট চাইতে পারে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ।

আজ সকাল ১১ টা নাগাদ জেলা সমস্ত পুলিশ সুপার এবং জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চের। দুই দফায় এই বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রথমো কোলকাতার পুলিশ কমিশনার, ১২ টি জেলার জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপারদের সঙ্গে বৈঠক হবে। এবং দ্বিতীয় দফায় জেলাশাসক,পুলিশ সুপারদের সঙ্গে বৈঠক হবে। বৈঠকে নির্বাচন কমিশন কী সিদ্ধান্ত নেয়,সেদিকেই পাখির চোখ থাকবে রাজনৈতিকমহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!