এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতার সব প্রচেষ্টা কি বিফলে? দিদিকে বড় কষ্ট দিয়ে ভাই এবার বিজেপিতে? জোর জল্পনা

মমতার সব প্রচেষ্টা কি বিফলে? দিদিকে বড় কষ্ট দিয়ে ভাই এবার বিজেপিতে? জোর জল্পনা

দীর্ঘদিন ধরেই তার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা চলছে সর্বত্র। বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা নিয়ে একসময় শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। এমনকি এই ঘটনার জেরে মন্ত্রী এবং কলকাতা পৌরসভার মেয়র পদ ছাড়তে হয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ শোভন চট্টোপাধ্যায় ওরফে কাননকে। আর তারপর থেকেই সেভাবে দলের কোনো কাজে সক্রিয় ভূমিকায় দেখা যাচ্ছিল না বেহালা পূর্ব কেন্দ্রের এই তৃণমূল বিধায়ককে।

সম্প্রতি তাঁর বিজেপি যোগের জল্পনা তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠতে শুরু করে। আর এই পরিস্থিতিতে কখনও পার্থ চট্টোপাধ্যায়, কখনও ফিরহাদ হাকিম আবার কখনও বা নিজের বিশ্বস্ত দূতকে পাঠিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মান ভাঙ্গানোর চেষ্টা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।কিন্তু তৃণমূল নেত্রীর এই চেষ্টাতেও কি অবশেষে জল ফেলে দিতে চলেছেন তারই এক সময় প্রিয় ভাই শোভন ওরফে কানন!

সূত্রের খবর, নতুন মাস পড়ার সাথে সাথেই বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে দিল্লী উড়ে গিয়েছেন তৃণমূল বিধায়ক তথা কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়। আর তার এই দিল্লি সফরকে ঘিরেই এখন রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে জল্পনা।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তাহলে কি অবশেষে গেরুয়া উত্তরীয় পড়তে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা! বিশেষজ্ঞদের মতে, এই জল্পনা কিছুটা হলেও সত্যি হতে পারে। কেননা এর আগেও অতীতে ঘুরতে যাওয়ার নাম করে তৃণমূলের অনেক বিধায়ক, নেতা, কাউন্সিলররা দিল্লিতে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে পা রেখেছেন। আর যার জেরে অস্বস্তি বেড়েছে তৃণমূলের। আর এবার দলে সক্রিয় হওয়ার জন্য শোভন চট্টোপাধ্যায়ের কাছে বারবার নিজের দূত পাঠিয়ে বার্তা দিতে চাইলেও দিদির বার্তাকে উপেক্ষা করে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দিল্লি সফর সকলের কাছে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

তবে অনেকে আবার বলছেন, আগামী 7 জুলাই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের জন্মদিন। আর তাই তার আগে একান্তে কিছুটা সময় তিনি দিল্লীতে কাটাতে চান। তাই তার এই দিল্লি সফর। কিন্তু যে যাই বলুন না কেন, দলে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সক্রিয়তা ফেরানো নিয়ে যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তীব্র চেষ্টা চালাচ্ছেন, ঠিক তখনই শোভনবাবুর এই দিল্লি সফর তৃণমূলের ঘুমকে দ্বিগুণ পরিমাণে উড়িয়ে দিচ্ছে। সব মিলিয়ে এখন দিদি মমতা বন্দোপাধ্যায়ের আবদার রেখে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃনমূলেই থাকেন, নাকি দিল্লিতে গিয়ে এখন তার গন্তব্য হয় বিজেপির সদর দপ্তর – সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!