এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এখনো মমতার অপেক্ষায় মুকুল বাড়িয়ে দিলেন বড়োসড়ো জল্পনা

এখনো মমতার অপেক্ষায় মুকুল বাড়িয়ে দিলেন বড়োসড়ো জল্পনা

Priyo Bandhu Media

রাজনৈতিক জীবনে প্রত্যেকেরই কিছু না কিছু ইচ্ছা থাকে। আর এবার নিজের অদ্ভুত এক ইচ্ছার কথা শোনালেন বঙ্গ বিজেপির চানক্য মুকুল রায়। ইচ্ছা অপেক্ষা এই গোটা বিষয়টাকে অপেক্ষা করা বলাই ভালো। কিন্তু কার জন্য আর কিসের জন্য অপেক্ষা করবেন মুকুল রায়? অন্য কেউ নন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার দলবলের জন্য!

কিন্তু যে প্রাক্তন নেত্রীকে তিনি এখন উঠতে-বসতে তুলোধোনা করেন, তার জন্য মুকুল রায়ের এহেন মন্তব্য কেন! বস্তুত সম্প্রতি উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন মুকুল রায় এবং অর্জুন সিংহ বলেন, “মুকুল রায় এবং অর্জুন সিংহ তৃণমূলে ঢোকার জন্য লাইন দিয়ে আছে।”

এদিন সেই সম্পর্কে বঙ্গ বিজেপির হেভিওয়েট নেতা মুকুল রায়কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক পাগলের প্রলাপ বকেন।” আর এরপরই বিস্ফোরক হয়ে বঙ্গ বিজেপির নেতা বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কবে দলবল নিয়ে আসবেন এবং বলবেন যে তৃণমূলটাকে আমি বিজেপির সঙ্গে মিলিয়ে দেব, আমি সেই দিনের অপেক্ষা করছি।” মুকুলবাবুর এই কথাতেই এবার রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে জল্পনা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তাহলে কি সত্যি তিনি এরকম কোনো আভাস পেয়েছেন! আর তাই মমতা বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে তিনি এই ধরনের মন্তব্য করলেন! এখন তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। এদিন বর্ধমানে ব্রিজ উদ্বোধন করা প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হয় মুকুল রায়কে।

সেই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গণতন্ত্র মানেন না। বাংলায় লোকতন্ত্র থাকবে কি থাকবে না, এটাই এখন সব থেকে বড় প্রশ্ন।” এদিকে চিটফান্ড কাণ্ডে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের গা ঢাকা দেওয়া নিয়েও সমালোচনায় সরব হন বঙ্গ বিজেপির চাণক্য।

তিনি বলেন, “ঘটনাটি সত্যিই নিন্দনীয়। সারা ভারতের সামনে দেশের চিত্র খারাপ হচ্ছে। রাজীব কুমারকে নিয়ে রাজ্য সরকার চূড়ান্ত অসহযোগিতা করছে।” সব মিলিয়ে রাজ্য সরকারের সমালোচনা করার পাশাপাশি প্রাক্তন নেত্রীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করে রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন মুকুল রায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!