এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ত্বে বিজেপির ঘুম ওড়াতে তৈরি ‘চারমূর্তি’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ত্বে বিজেপির ঘুম ওড়াতে তৈরি ‘চারমূর্তি’

Priyo Bandhu Media


মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ত্বে বিজেপির ঘুম ওড়াতে ‘চারমূর্তি ‘ তৈরি হচ্ছে অন্তত রাজনৈতিক সমীকরণ তাই বলছে। শুধু রাজ্যে নয় সমগ্র দেশে বিজেপির বাড়বাড়ন্তে একটু হলেও চিন্তিত রাজনৈতিক দলগুলি আর তাই এবার উত্তর – পূর্ব ভারতে বিজেপি উত্থান ও শক্তি বৃদ্ধি খর্ব করার জন্য বিজেপি বিরোধী ফ্রন্ট গুলি ক্রমশঃ জোটবদ্ধ হচ্ছে।জানা গেছে দেশের নানান প্রান্ত থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে বিজেপি বিরোধী দলগুলি যোগাযোগ করছেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন তেলেঙ্গানা তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও।২০১৯-কে মাথায় রেখে কেন্দ্রে বিকল্প সরকার হিসেবে তৃতীয় ফ্রন্ট গড়ার প্রস্তাব দে রাও। তাছাড়া রাও এর পরে মমতার সাথে যোগাযোগ করেন তামিলনাড়ুর ডিএমকে দলের কার্যনির্বাহী সভাপতি এম কে স্ট্যালিন । তাছাড়া স্ট্যালিন ও মমতার নেতৃত্বে কেন্দ্রে বৃহত্তর জোটের প্রসঙ্গে তাদের আলোচনা হয় বলেও জানা গেছে। স্ট্যালিন এর হিসেব মতো তামিলনাড়ু ও পশ্চিমবঙ্গের এই দুটি দল একজোট হলে আগামী লোকসভায় কমপক্ষে ৭০-৭৫টি আসন পেয়ে অন্যতম নির্ণায়ক শক্তি রূপে অবস্থান করতে পারবে। এরপরে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে কথা বলেন মুম্বই থেকে শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে । মুখ্যমন্ত্রীর সাথে ঠাকরে সাহেবের ও কথোপকথনের বিষয়বস্তু ও মূলতঃ বিজেপি বিরোধী ফ্রন্ট গঠনই ছিলো । তবে সোমবার বিজেপি বিরোধী ফ্রন্ট গঠন প্রসঙ্গে তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেন, ‘শুধু কেসিআর, উদ্ধব ঠাকরে এবং স্ট্যালিনই নন, আরও অনেক নেতা-নেত্রীর সঙ্গে কথা বলছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। রাজনীতিতে এটা নতুন কিছু নয়। মমতা ব্যানার্জির পথেই হাঁটতে চাইছে অন্য বিরোধীরা। ফলে, বলা যেতে পারে, ত্রিপুরা জয় করে বিজেপি এখন যে উচ্ছ্বাস দেখাচ্ছে ২০১৯-র নির্বাচনে তা মুখ থুবড়ে পড়বে। যদিও তৃণমূল কিন্তু নিজের পথ থেকে একবিন্দু সরছে না।’

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!