এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মমতা ডাক্তারদের প্রতি বিরূপ হলেও, তার ভাইপো থেকে দলীয় নেতারা ডাক্তারদের পাশেই!

মমতা ডাক্তারদের প্রতি বিরূপ হলেও, তার ভাইপো থেকে দলীয় নেতারা ডাক্তারদের পাশেই!

রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার তীব্র সংকটে এবার যেন ঘরে বাইরে চাপের মুখে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একদিকে চিকিৎসকদের ধর্মঘট তুলে নিতে যেমন রনংদেহী মেজাজে অবতীর্ণ হচ্ছেন তিনি, ঠিক তেমনই এবার তারই ঘরের ছেলে মেয়েরা সেই মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকার বিরুদ্ধে গিয়ে চিকিৎসকদের পাশে দাঁড়ানোয় শুরু হয়েছে বিতর্ক।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবারই এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসকদের প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার পরিপ্রেক্ষিতে সেই চিকিৎসকদের কর্মবিরতি তুলে নেওয়ার জন্য সময় বেঁধে দেন তিনি। এমনকি গোটা ঘটনায় বহিরাগতরা রয়েছে বলেও দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এতেই শুরু হয় বিতর্ক। পরিস্থিতি এমন দিকে যেতে শুরু করে যে, বিভিন্ন চিকিৎসকেরা গণইস্তফায় সামিল হন।

এমতাবস্তায় শাসকদলের প্রত্যেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে থাকবেন বলে মনে করলেও এবার যেন তৃণমূলের এই ব্যাপারে তৃণমূল নেত্রীর উল্টো সুর গাইতে শুরু করলেন হেভিওয়েট নেতা নেত্রীর নিকটাত্মীয়রা। জানা গেছে, কলকাতা পৌরসভার মেয়র তথা রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের মেয়ে আব্বা করিম সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ব্যাপারে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের সমালোচনা করে চিকিৎসকদের ধর্মঘটের পক্ষে সওয়াল করেছেন।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে বারাসাতের তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারের চিকিৎসক পুত্র বৈদ্যনাথ ঘোষ দস্তিদারও আন্দোলনকারীদের পাশে থেকে শাসকদলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। শুধু তাই নয়, এর আগে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তথা তৃণমূল সাংসদ ডঃ শান্তনু সেনের স্ত্রী কাকলী সেন এবং তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো পেশায় চিকিৎসক আবেশ বন্দ্যোপাধ্যায়কেও এই ধর্মঘটের সমর্থনে নীলরতন সরকার হাসপাতালের মিছিলে অংশ নিতে দেখা গিয়েছিল। আর এতেই কার্যত বিপাকে পড়তে শুরু করেছে তৃণমূল।

আর পরিস্থিতি মোকাবিলায় এবার মেয়র ফিরহাদ হাকিম থেকে শুরু করে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়, বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা চিকিৎসকদের রোগীদের পাশে থাকার আবেদন করেছেন। এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় তাঁর ফেসবুক পোস্ট লেখেন, “আন্তরিকভাবে চিকিৎসকদের অনুরোধ জানাই, যতই ভুল-বোঝাবুঝি হোক, মানুষের উপর বিশ্বাস রাখো। তোমাদের নিরাপত্তা যেমন দরকার, তেমনই রোগগ্রস্ত মানুষ তোমাদের সেবায় ভালো হয়ে উঠুক সেটাই চাই। তাই আবেগ নয়, হৃদয় দিয়ে বিষয়টি বিবেচনা করো।”

বিরোধীদের দাবি, রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় এ যেন অশনিসংকেত চলছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী চিকিৎসকদের প্রতি সহানুভূতি বজায় না রেখে যেভাবে তাদের কাজে যোগ দেওয়ার জন্য সময় বেঁধে দিয়েছেন এবং তাদের বহিরাগত আখ্যা দিয়েছেন তাতে তিনি তার দলেরই সমর্থন হারিয়ে ফেলেছেন। আর তাই পুরমন্ত্রীর কন্যা থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো – সকলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধিতা করা শুরু করেছেন। তবে তৃণমূলের অবশ্য দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গোটা বিষয়টি নিয়ে ওয়াকিবহাল। তিনি চিকিৎসকদের পাশেই রয়েছেন। দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করতে সরকার বদ্ধপরিকর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!