এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > আর দল ভাঙাবেন না, আব্দুল মান্নানকে কথা দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

আর দল ভাঙাবেন না, আব্দুল মান্নানকে কথা দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বামফ্রন্টের সঙ্গে জোট বেঁধে কংগ্রেস রাজ্য থেকে তৃণমূলকে উৎখাত করতে না পারলেও দীর্ঘদিন বাদে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলের তকমাটা ছিনিয়ে নিয়েছিল। কিন্তু সেই ‘সুখ’ বেশিদিন টিকল না, একের পর এক কংগ্রেস বিধায়ক দল ছেড়ে নাম লেখাতে শুরু করলেন শাসকদলে, আর সংখ্যাটা ক্রমে ক্রমে ১৫ তে পৌঁছল। কিন্তু সেই দলবদল যে এখানেই শেষ হবে না, সে ইঙ্গিত মিলেছে, যখন মালদার বুকে দাঁড়িয়ে শুভেন্দু অধিকারী হুঙ্কার ছেড়েছেন যে এবার মুর্শিদাবাদের কায়দায় মালদা ‘দখল’ করবে তৃণমূল কংগ্রেস। সঙ্গে সঙ্গে জল্পনা বেড়েছে, মালদার কোন কোন কংগ্রেস বিধায়ক এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘উন্নয়নের’ নৌকায় পা রাখবেন?

আর এইসবের পরিপ্রেক্ষিতে এর আগে বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে নালিশ করে বা adalate গিয়ে কোনো সুরাহা না পেয়ে শেষে অনন্যপায় হয়ে বিধানসভার বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান গত ৩১ শে মে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এক চিঠি লেখেন। যার মূল প্রতিপাদ্য ছিল, তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ না দিলে কংগ্রেসের নির্বাচিত সদস্যদের মিথ্য মামলার ভয় দেখানো হচ্ছে! কংগ্রেস সূত্রের খবর, সেই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে চিঠি নয়, একেবারে সরাসরি আব্দুল মান্নানকে ফোন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তিনি মান্নান সাহেবকে আশ্বস্ত করেন যে তাঁর দল তৃণমূল কংগ্রেস এইভাবে কাউকে দলে নেবে না। যদিও আব্দুল মান্নান নিজে এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে, এর বেশি কিছু বলব না। তবে এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় রাজনৈতিক মহল এখন দেখতে উদগ্রীব – আদতে তৃণমূল কংগ্রেস কি করে। জাতীয় রাজনীতির দিকে তাকিয়ে বিজেপিকে হঠাতে আপাতত কংগ্রেস ভাঙ্গানো সত্যিই বন্ধ রাখে, নাকি বাংলায় ১০০% শাসকদলের আধিপত্য কায়েম করতে পুরোনো তালেই বিরোধীদের ‘উন্নয়নের নৌকায়’ সওয়ার করতে থাকে?

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!