এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “বদলের নেত্রীর” এখন “মাথা গরম”, 23 তারিখের পর “বদলার রাজনীতি” শুরু করবেন জানালেন খোদ মমতা

“বদলের নেত্রীর” এখন “মাথা গরম”, 23 তারিখের পর “বদলার রাজনীতি” শুরু করবেন জানালেন খোদ মমতা

2011 সালে রাজ্যে ক্ষমতা বদলের পর তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে “বদলা নয়, বদল চাই” স্লোগানে দলীয় কর্মীদের হাত পায়ে বাধন দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর নেত্রী বাঁধন দেওয়ার জন্যই তারা সহিষ্ণুতা পালন করছে বলেও বিভিন্ন জনসভা থেকে বক্তব্য দিতে দেখা দিয়েছিল তৃণমূলের নেতাকর্মীদের। কিন্তু এবার ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় বদলার রাজনীতির পক্ষেই যেন সওয়াল করতে দেখা গেল তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

প্রসঙ্গত, গতকাল বেহালায় নির্বাচনী সভা চলাকালীন বিদ্যাসাগর কলেজে হামলা এবং ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনার খবর পান তৃনমূল নেত্রী। আর তখনই মঞ্চ থেকে ক্ষোভ উগরে দিয়ে একদা বদলের নেত্রীর গলায় শোনা যায় বদলার সুর। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আগে বলেছিলাম বদলা নয়, বদল চাই। কিন্তু বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের এই তাণ্ডব এবং বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার পর বলছি এবার বদলা চাই। গণতান্ত্রিকভাবেই বদলা চাই। এতদিন মাথা গরম করিনি, কিন্তু আজ করছি। 23 তারিখের পর সব ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে জবাব দেব।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

অন্যদিকে এদিনের মঞ্চ থেকে সুকান্ত ভট্টাচার্যের কবিতা আওড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আদিম হিংস্র মানবিকতার যদি আমি কেউ হই, স্বজনহারানো শ্মশানে তোদের চিতা আমি তুলবই।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, এদিনের সভায় এযেন এক অন্য মমতাকে দেখল বাংলা। বরাবরই যিনি সহিষ্ণুতার কথা বলে এসেছেন, “বদলা নয়, বদল চাই” এর পক্ষে সওয়াল করে এসেছেন, সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই এহেন আচরণ রাজনৈতিক মহলের অন্দরেও নানা গুঞ্জন সৃষ্টি করেছে।

তবে সমালোচক মহলের একাংশ অবশ্য বলছেন, এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখে “এবার গনতান্ত্রিকভাবে বদলা হবে” বলে মন্তব্য করলেও মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই তিনি বদলার রাজনীতি শুরু করেছেন। তাই প্রকাশ্যে প্রথম বদলার রাজনীতির কথা বললেও, তলায় তলায় অনেক দিন আগে থেকেই তার দল এবং তার দলের কর্মীরা বিরোধীদের প্রতি এহেন বদলা নিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে বেহালার জনসভা শেষ করে এদিন বিধানসরণীতে বিদ্যাসাগর কলেজ পরিদর্শনে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানেই পুলিশের পক্ষ থেকে এই ঘটনায় কোনো বিবৃতি জানানো হয়েছে কি না তা নিয়ে কলকাতা পুলিশের কাছে জানতে চান মুখ্যমন্ত্রী। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে অবশ্য এই ব্যাপারে কোনো বিবৃতি দেওয়া হয়নি বলে জানিয়ে দেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার ডঃ রাজেশ কুমার।

অন্যদিকে এই মূর্তি ভাঙ্গার ঘটনায় বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে গুন্ডা বলেও অভিহিত করেন তৃণমূল নেত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “অমিত শাহ এখানে রাজস্থান, বিহার, ঝাড়খণ্ড, উত্তরপ্রদেশের লোক এনে রোড শো করেছেন। বাংলার হেরিটেজকে অপমান করেছে। অমিত গুন্ডা, হ্যাঁ, গুন্ডাই বলব। আজ আমাকে কেউ আটকাতে পারবে না। এত বড় সাহস, এর শেষ দেখে আমি ছাড়ব।”

এদিকে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে আগামী 16 মে জোকা থেকে তারাতলা পর্যন্ত একটি প্রতিবাদ মিছিল হবে বলেও এদিন জানিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সব মিলিয়ে বদলের রাজনীতি থেকে 180 ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে এবার বদলার রাজনীতির কথা শোনা গেল তৃনমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর গলায়।

Top
error: Content is protected !!