এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > জঙ্গলমহলে দাঁড়িয়েই দিদির বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দাগদেন প্রধানমন্ত্রী

জঙ্গলমহলে দাঁড়িয়েই দিদির বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দাগদেন প্রধানমন্ত্রী

আজ ঝাড়গ্রামে প্রচার সভা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেখান থেকেই বিভিন্ন ইস্যুতে তিনি তৃণমূল নেত্রীকে করা আক্রমণ শানান।একাধিক বিষয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারকে এ দিন কাঠগড়ায় তুললেন
প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, রেশনের মাধ্যমে মানুষকে সস্তায় চাল গম দেওয়ার জন্য কেন্দ্র মোটা টাকা রাজ্যকে পাঠায়। কিন্তু সেই রেশনের টাকা থেকেও তোলা তুলছে তৃণমূলের এজেন্টরা। জঙ্গলমহলের মানুষকে রেশনে খারাপ চাল সরবরাহ করা হচ্ছে। এমনকী এও শোনা যায় যে গরিব পরিবারের রেশন কার্ডও নাকি আটকে রাখে তৃণমূলের এজেন্টরা। বুঝে পাইনা মেয়েদের সঙ্গে, গরিবদের সঙ্গে দিদির এতো শত্রুতা কেন?

পঞ্চায়েত ভোটে এই ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুরে খারাপ হয়েছিল তৃণমূল। পরে ময়নাতদন্তের পর তৃণমূলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও জানতে পেরেছিলেন, গণবন্টন ব্যবস্থায় দুর্নীতি পরাজয়ের বড় কারণ। স্থানীয় স্তরে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা তৈরি হয়েছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সেই প্রতিষ্ঠান বিরোধিতাকেই এ দিন আরও হাওয়া দিতে চান মোদী। তিনি বলেন, বাংলায় তৃণমূলের এজেন্ট ছাড়া একটাও কাজ হয় না। সরকারি পরিষেবা পেতে, ব্যবসা করতে, কাজ করতে গেলেই এজেন্টদের টাকা দিতে হয়। গরিবের টাকা খেয়ে নিচ্ছে তৃণমূল।

জঙ্গি মাসুদ আজহারকে ইস্যুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কটাক্ষ করলেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন মাসুদ আজহারকে আন্তর্জিতিক জঙ্গি হিসেবে ঘোষণা করেছে রাষ্ট্র সংঘ। দেশবাসী গর্বিত হলেও, এবিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি মমতা। অভিযোগ করেছেন নরেন্দ্র মোদী।

ভোটের আগে ফেনী নিয়ে মানুষের আবেগকে উস্কে দিয়ে দাবি করেন যে, বাংলার মানুষের জন্য মমতা দিদির কোনও মাথা ব্যথা নেই। তিনি ফণীর পরিস্থিতি নিয়ে খোঁজ নিতে ২ বার ফোন করলেও, মমতা কথা বলেননি। তমলুকের সভা থেকে অভিযোগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর অভিযোগ, মমতা রাজনীতির খেলা খেলছেন।

এদিকে জয় শ্রীরাম ধ্বনি তোলায় কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার প্রসঙ্গেও এদিন প্রধানমন্ত্রী বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র আক্রমণ করেন। মোদীর অভিযোগ, রাজ্যে জয় শ্রীরাম বললেই জেলে পাঠানো হয়। পশ্চিমবঙ্গে রাম নাম নেওয়া কি অপরাধ প্রশ্ন করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, আপনার একটি ভোট হলদিয়ার গৌরব ফিরিয়ে আনতে পারে। তাই চুপ চাপ কমলে ছাপ দেওয়ার আহ্বান করেন তিনি।

আপনার মতামত জানান -
Top