এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুখ্যমন্ত্রীর হিসাবে পঞ্চায়েতে ‘শহীদের’ সংখ্যা ১৪, ‘সন্ত্রাস’ নিয়ে দিলেন বড় বার্তা

মুখ্যমন্ত্রীর হিসাবে পঞ্চায়েতে ‘শহীদের’ সংখ্যা ১৪, ‘সন্ত্রাস’ নিয়ে দিলেন বড় বার্তা

নানা সূত্র তথা সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থানীয় দলীয় নেতৃত্ব থেকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে খুন , জখম, হিংসার কারণে দলীয় কর্মী সদস্যদের মৃত্যুর পরিসংখ্যান পাওয়া গেছে।  সোমবার সন্ধ্যেয় খোদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন রাজ্যে এ পর্যন্ত ১৪ জন তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী খুন হয়েছেন। এদিন নবান্ন থেকে বেরনোর সময়ে মুখ্যমন্ত্রী বললেন, “যারা হামলা করছে, তারাই ভোট এড়াতে এ দিক-ও দিক যাচ্ছে, লুঠ করছে, আগুন জ্বালাচ্ছে, বাড়ি ভাঙছে। আবার অপপ্রচার, কুত্‍সা করছে!”   মুখ্যমন্ত্রী দাবি করলেন, ”আমি কোনও খুন চাই না। সে সাধারণ মানুষই হোক বা কোনও রাজনৈতিক দলের কর্মীই হোক।”  রাজ্যের বিরোধী দলগুলি অবশ্য শাসক দলের পেশ করা মৃতের তালিকার সত্যতা স্বীকার করছেন না।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তাদের পাল্টা বক্তব্য, নিহতের সংখ্যা যা-ই হোক, তৃণমূলের সঙ্গে তৃণমূলের বিরোধেই প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে আর তার দায় চাপানো হচ্ছে বিরোধীদের ঘাড়ে। এই পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধী শিবিরের মধ্যে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের প্রতিক্রিয়া ,”তৃণমূলের কর্মীরা খুন হচ্ছেন ঠিকই। কিন্তু একটা কথা ওঁরা বলছেন না। তৃণমূলের লোক খুন হচ্ছে তৃণমূলেরই হাতে। তৃণমূলের ঝান্ডা ধরলেই কেউ আর নিরাপদ নয়!”  প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বললেন,  ”তৃণমূল নিজেদের মধ্যে মারামারি করছে। আর পুলিশকে দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে বিরোধী দলের লোকজনকে।”  সর্বোপরী বিজেপির রাজ্য সম্পাদক দিলীপ ঘোষ বললেন, ”১৪ তো কম, সংখ্যাটা ১০০ হবে! তৃণমূলের গোষ্ঠী-দ্বন্দ্বের পরিণতি এ সব। প্রশাসনে এবং দলে মুখ্যমন্ত্রীর কোনও নিয়ন্ত্রণ নেই।”

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!