এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > ‘সততার প্রতিক থাকতে পারলেন না মমতা’ – মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র কটাক্ষ বিজেপি নেতার, জেনে নিন বিস্তারিত

‘সততার প্রতিক থাকতে পারলেন না মমতা’ – মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র কটাক্ষ বিজেপি নেতার, জেনে নিন বিস্তারিত

একসময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছের মানুষ হিসেবেই পরিচিত ছিলেন তিনি। কিন্তু সারদাকাণ্ডে সেই কুনাল ঘোষ গ্রেফতার হওয়ার পরই ধীরে ধীরে তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়তে থাকে তার। প্রকাশ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সরব হতেও দেখা যায় তৃণমূলের বহিষ্কৃত সাংসদ কুণাল ঘোষকে।

তবে এবার আশ্চর্যজনকভাবে বঙ্গ রাজনীতিতে তীব্র জল্পনা উসকে দিয়ে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়িতে গেলেন সেই কুনাল ঘোষ। যাকে ঘিরে এখন প্রবল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। অনেকে বলছেন, বছর পাঁচেক দেখা না হওয়ার পর সংসদের সেন্ট্রাল হলে গত এক বছর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা হয়েছিল এই কুনাল ঘোষের। আর সেখানেই দুইজনের মধ্যে সৌজন্যে আলাপচারিতা হয়।

কুণালকে কাছে ডেকে নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “কুনাল, কতদিন পর তোমার সঙ্গে দেখা। এসো।” আর তারপরই কুণাল ঘোষ বলে ওঠেন, “হ্যাঁ দিদি, অনেকদিন পর। প্রায় পাঁচ বছর।” পাল্টা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “পাঁচ বছর অনেকদিন। এতদিনে একটা বাচ্চাও বড় হয়ে যায়।” আর এরপরই তৃণমূল নেত্রীর কাছে এসে তাকে প্রণাম করে বেশ কিছুক্ষন গল্প করেন কুনাল ঘোষ। সেইখানেই শেষ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

তারপর সেইভাবে আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও কুণাল ঘোষের মধ্যে সাক্ষাৎ হয়নি। তবে এবার লোকসভা নির্বাচনে যখন রাজ্যে তৃণমূলের ভরাডুবি হয়েছে, একের পর এক তৃণমূলের হেভিওয়েট বিধায়ক, নেতা, কাউন্সিলররা বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন, ঠিক তখনই গতকাল তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি গিয়ে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল যুবর সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করলেন কুনাল ঘোষ।

সূত্রের খবর, প্রায় চার ঘণ্টা তাদের মধ্যে এই বৈঠক হয়। কিন্তু এতদিন পর কেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে কুনাল? এদিন এই প্রসঙ্গে সেই কুনাল ঘোষ বলেন, “তৃনমূলেই আছি, তৃণমূলেই ছিলাম আর তৃণমূলেই থাকব।দলের কঠিন সময়ে ছিলাম। আজও আছি। ভবিষ্যতেও থাকব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। আমি তৃণমূলের পুরনো সৈনিক। সেই হিসেবেই দেখা করতে এসেছিলাম।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, সারদাকাণ্ডে কুনাল ঘোষের নাম জানানোর পর এবং সেই কুনাল ঘোষ গ্রেপ্তার হওয়ার পরই দলের সঙ্গে তার দূরত্ব বাড়তে থাকে। তবে এবার রাজ্যে লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবির পর যখন পুরনো কর্মীদেরকে ফের দলের মূল স্রোতে নিয়ে আসার কথা ঘোষণা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক তখনই কুণাল ঘোষের সেই তৃণমূল নেত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে গিয়ে দীর্ঘক্ষন বৈঠক রাজনৈতিক মহলে নিয়ে আসছে প্রবল জল্পনা।তাহলে কি এবার ফের দলের মূল স্রোতে ফিরে আসলেন কুনাল ঘোষ! এখন এই প্রশ্ন এখনো ঘোরাফেরা করছে সর্বত্র।

আর এর রেশ মিটতে না মিটতেই এবার এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা অর্জুন সিং। নব্য বিজেপি নেতা তথা বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং এই নিয়ে বলেন, দিদিমণির এমন বেহাল অবস্থা হয়ে গিয়েছে যে যারা জেল খেটে বেরোচ্ছে তাদের বাড়িতে ডেকে বৈঠক করছেন তিনি।

সাথেই এদিন তিনি কটাক্ষ করে বলেন যে, যে সারদা মামলায় জেল খেটেছে তাকে বাড়িতে ডেকে মিটিং করছেন দিদিমণি। তিনি আর সততার প্রতিক থাকতে পারলেন না। মদন মিত্রর উদাহরণ টেনে বারাকপুরের সাংসদ বলেন, জেল খেটে আসা লোকেদের তো দিদি এখন টিকিটও দিচ্ছেন।যদিও এখনো এই নিয়ে তৃণমূলের তরফ থেকে কোনো পতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!