এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > আজ হাওড়া থেকে কি বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী সেদিকেই তাকিয়ে গোটা রাজ্য

আজ হাওড়া থেকে কি বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী সেদিকেই তাকিয়ে গোটা রাজ্য

হাওড়ার শরৎ সদনে  প্রশাসনিক বৈঠকে বক্তব্য রাখতে চলেছেন আজ বঙ্গের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে মঞ্চ প্রস্তুতি ও নিরাপত্তাব্যবস্থা নিয়ে সক্রিয়তা কর্মসূচি শুরু হয়েছে হাওড়ার জেলার অাধিকারিকদের ভিতর। এই বছরই পুজোর পর হাওড়ায় পুরভোট হবার কথা। তার আগেই প্রশাসনিক বৈঠক করতে মুখ্যমন্ত্রীর আসা উপলক্ষে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকাতেই।

জানা যাচ্ছে, এই বৈঠকে নেত্রীর সাথে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে অরূপ রায়,রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, লক্ষীরতন শুক্লা ছাড়া আরো কিছু মন্ত্রীর। থাকছেন  হাওড়ার মেয়র ড. রথীন চক্রবর্তী, জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী, সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, সাজদা আহমেদ সহ জেলার সব বিধায়ক, জেলা পরিষদের আধিকারিকগণ এছাড়াও পুলিশকর্তারা। এর পাশাপাশি হাজির থাকবেন বিভিন্ন সরকারি দফতরের কর্তারা। জেলা প্রধান স্বাস্থ্যদফতরের কর্তা থেকে হাসপাতালসুপার,এছাড়াও  পঞ্চায়েত আধিকারিকরাও।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা যাচ্ছে, নেত্রীর আসার উপলক্ষে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। শরৎ সদনের মুল মঞ্চের পাশাপাশি অন্যান্য জায়গাগুলোকেও স্নিফার গান ও মেটাল ডিকেক্টর দিয়ে বারবার তদাকর করছেন শীর্ষ পুলিশ কর্মীরা। জানা যাচ্ছে প্রায় ৬০ টি আসন থাকছে মূল মঞ্চে। এছাড়াও জানা যাচ্ছে যে, শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য, রাস্তার দুপাশে দেওয়া হয়েছে বাঁশের ব্যারিকেড। এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী যে পথ দিয়ে মূল মঞ্চে পৌছাবেন সেখানে লাগানো এবং তাঁর আশেপাশের এলাকাতে লাগানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা। বৈঠক চলাকালীন  কড়া নজরদারিতে সজাগ থাকবেন পুলিশ কর্তারা।হাওড়া সিটি পুলিশ কমিশনার ডি.পি.সিং এর তরফ থেকে জানা গেছে যে আগেকার বৈঠকের সময় যে করকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিলো,এবারও একইরকম ভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে সব। প্রায় সাড়ে আট হাজার বর্গ ফুট এলাকা জুড়ে বানানো হয়েছে প্যান্ডেল। হাওড়া পুর নিগমের তরফ থেকে রাজ্যসরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের নমুনা তুলে ধরে রাস্তার দুধারে হোডিংও লাগানো হয়েছে। শরৎ সনদ হলকে পরিপাটি করে তোলা হয়েছে আলোর রোশনাই এবং গাছের টব বসিয়ে। বুধবার বিকেলেই চরম মুহূর্তের প্রস্তুতির তদারক করে দেখেছেন প্রশাসনের আধিকারিকরা।

 

জানা যাচ্ছে যে,হাওড়ায় বৈঠক শেষে  বেশকিছু প্রকল্পের শিলান্যাস এবং কিছু প্রকল্পের উদ্বোধন কর্মসূচির পরিকল্পনাও রয়েছে তৃণমূলনেত্রীর। এর সঙ্গেই হাওড়ার পুর নিগমের উদ্যোগে করা আর্কাইভের ফিতেও কাটবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও হাওড়া উন্নয়ন সংস্থার দ্বারা আরুপাড়া পুলিশ ট্রেনিং একাডেমি থেকে হাওড়া গেট অব্দি রাস্তার সূচনাও করবেন তিনি। এর পাশাপাশি শিলান্যাস করার কথা আছে কয়েকটি রাস্তা নির্মান প্রকল্প সহ কোনা জিআইএস সাব স্টেশান,ঘুসুড়ির স্কিম নম্বর ৬ এর পুকুরের সৌন্দর্যায়ন প্রকল্পও। আপাতত হাওড়া মুখিয়ে আছে মুখ্যমন্ত্রীর তাঁদের জেলার পদার্পণ উপলক্ষে। এদিন সকাল থেকেই কর্মতৎপরতায় মশগুল ছিলেন জেলা আধিকারিক সহ পুলিশ কর্তারাও। আমজনতার মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে নেত্রীর বক্তব্য শোনার জন্যে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!