এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > একের পর এক জাতীয়স্তরের শীর্ষনেতার নবান্নে আগমন, প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাড়ছে

একের পর এক জাতীয়স্তরের শীর্ষনেতার নবান্নে আগমন, প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাড়ছে

পূর্ব পরিকল্পনা মতো শুক্রবার নবান্নে জম্মু-কাশ্মীরের ন্যাশনাল কনফারেন্স সুপ্রিমো ওমর আবদুল্লার সাথে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈঠক আয়োজিত হলো। দীর্ঘ সময় ব্যাপী এদিনের বৈঠকে মূলত আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বিরোধী ‘ফেডারেল ফ্রন্ট’ গঠনের প্রয়োজনীয়তা এবং গঠন সংক্রান্ত নানা রকম পদক্ষেপ গ্রহণ বিষয়েই দুই দলের প্রধানের মধ্যে আলাপ আলোচনা হয় বলে সূত্রের খবর।

বৈঠকের শেষে একটি সাংবাদিক বৈঠকে জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা জানান, আমাদের লক্ষ্য মোদিকে হারানো। মমতা দিদির সঙ্গে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। পৃথক ফেডারেল ফ্রন্ট গঠন করে কীভাবে মোদি বিরোধী শক্তিকে চাঙ্গা করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। একই সাথে তিনি ন্যাশনাল কনফারেন্স এবং তৃণমূল কংগ্রেস দল আগামী দিনে লোকসভা নির্বাচনে জোট বেঁধে লড়াই করবে বলেও আশ্বাস দিলেন।

অন্যদিকে ওমর আবদুল্লার সঙ্গে বৈঠকের পরেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মানুষের জন্য আমরা জোট বেঁধে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছি। মোদিকে হারাতে আমরা সব অ-বিজেপি শক্তিকে এক হওয়ার ডাক দিয়েছি। এদিনের বৈঠকের মূল উদ্দেশ্য সেই লক্ষ্যে পৌঁছনোর পথকে মজবুত করা বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিনের বৈঠক আগামী দিনের ‘ফেডারেল ফ্রন্ট’ গঠনের ক্ষেত্রে কী বৈচিত্র্য আনে তা ভবিষ্যতই বলবে। কিন্তু কেন্দ্র থেকে বিজেপি সরকারকে উৎখাত করে সেখানে অন্য কোন সরকার আনার ক্ষেত্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে ভূমিকা নিচ্ছেন তা প্রশংসা কুড়িয়ে নিচ্ছে জাতীয় রাজনীতির। তাঁর অগ্রণী ভূমিকায় সারা দিয়ে ইতিমধ্যেই তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী তথা টিআরএস সুপ্রিমো কে চন্দ্রশেখর রাও নবান্নে এসে বৈঠক করে গেছেন।

অন্যদিকে, বিজেপির দীর্ঘদিনের জোট শরিক শিবসেনা জোট ভেঙে বেরিয়ে এসেছে – আর তার পিছনে মমতা ব্যানার্জির ভূমিকা কম নয় বলেই ধারণা রাজনৈতিক মহলের। ফেডারেল ফ্রন্টের আরো বেশ কিছু শীর্ষনেতা, যেমন চন্দ্রবাবু নাইডু বা স্ট্যালিনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ত্ব মেনে নিয়েছেন। তাছাড়া কর্নাটকে কংগ্রেস-কুমারস্বামী বা উত্তরপ্রদেশে অখিলেশ-মায়াবতী জোট করতে যেভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিলেন তাও সবার নজর কেড়েছে। সবমিলিয়ে, প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রী পাওয়ার স্বপ্নটা ক্রমশ উস্কে দিচ্ছেন বাংলার ‘অগ্নিকন্যা’।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!