এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > মালদা দক্ষিণ তুমি কার? কেমন হল ভোট? ভোটের পর কি বলছেন বিরোধী প্রার্থীরা?

মালদা দক্ষিণ তুমি কার? কেমন হল ভোট? ভোটের পর কি বলছেন বিরোধী প্রার্থীরা?

প্রথম দুই দফার ভোটের পর তৃতীয় দফার ভোটে ঠিক কি হয় তার দিকে নজর ছিল প্রায় প্রত্যেকেরই। কেননা এই তৃতীয় দফার ভোটে অন্যান্য কেন্দ্রের সঙ্গে মালদহ জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন ছিল। যেখানে মালদার দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন এলাকা সন্ত্রাস কবলিত এলাকা বলেই বিভিন্ন সময় দাবি করতে দেখা গিয়েছিল বিরোধীদের একাংশকে। তবে দিনের শেষে মোটের উপর শান্তিপূর্ণভাবেই যে শেষ হল সেই দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন তা কার্যত এক বাক্যে স্বীকার করে নিলেন শাসক থেকে বিরোধী সমস্ত দলের প্রার্থীরাই।

সূত্রের খবর, বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত এই দক্ষিণ মালদহে 77.03 শতাংশ ভোট পড়েছে। তবে ভোটগ্রহণ পর্বের শুরুর দিকে ইভিএমের ত্রুটি, বিচ্যুতি নিয়ে কিছুটা সমস্যা তৈরি হয়। ইংলিশবাজার, বৈষ্ণবনগর এবং মানিকচকের বেশ কিছু বুথে ভোটিং মেশিন খারাপ হয়ে যাওয়ায় ভোটারদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সূচনা হলে কিছুক্ষণের মধ্যেই নির্বাচন কমিশন এই ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করে। আর এরপরই গোটা সমস্যার সমাধান হয়।

হাতের মুঠোয় আরও সহজে প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে যোগ দিন –

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এদিকে ভোট শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তৃণমূল, বিজেপি এবং কংগ্রেস প্রার্থীরা এলাকায় এলাকায় ঘুরতে শুরু করেন। সকাল আটটা পনেরোতে ইংলিশবাজারের কোতোয়ালিতে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করেন দক্ষিণ মালদহের কংগ্রেস প্রার্থী আবু হাসেম খান চৌধুরী, এবং অন্যদিকে বৈষ্ণবনগরের ভগবানপুরের এলাহিটোলায় ভোট দিতে দেখা যায় এই কেন্দ্রেরই তৃণমূল প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেনকে। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথেই শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলতে শুরু করেন বিরোধী দলের প্রার্থীরা।

ইংলিশবাজারের 21 নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপির এজেন্টেকে জোর করে বাইরে বের করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ জানান এই দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শ্রীরুপা মিত্র চৌধুরী। তিনি বলেন, “তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা বিভিন্নভাবে নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা চালিয়েছে। বেশ কয়েকটি বুথে লুট করার চেষ্টা করেছে। তবে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকায় তা সম্ভব হয়নি। আমরা মনে করি যে দক্ষিণ মালদহে 70 শতাংশ শান্তিতে ভোট হয়েছে।”

তবে আশ্চর্যজনক ভাবে প্রায় প্রতিটি নির্বাচনেই দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত কালিয়াচকের মোজামপুর এবং শ্মশানী এলাকায় অশান্তি হলে এবারের নির্বাচনে এখানে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ পর্ব সম্পন্ন হতে দেখা গেছে। যা নিয়ে খুশি শাসক-বিরোধী প্রত্যেকেই। তবে বেশ কিছু বুথে ভোটগ্রহণ পর্বে শাসকদলের দুষ্কৃতীরা বাধাদান করছে বলে অভিযোগ জানান এই দক্ষিণ মালদহের লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী আবু হাসেম খান চৌধুরী।

কালিয়াচকের যদুপুরে 49 এবং 50 নম্বর বুথ, মোজামপুরে 166,167 ও 168 নম্বর বুথ এবং বামনগ্রামের 130 নং বুথে ভোটারদের ভয় দেখানো, বিরোধীদের বের করে দেওয়া এবং বুথ দখলের অভিযোগ তুলে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হন কংগ্রেসের আবু হাসেম খান চৌধুরী। তবে বিশ্লেষকদের মতে, যে দলের পক্ষ থেকে যাই দাবি করা হোক না কেন, দিনের শেষে প্রায় প্রত্যেকেই এই দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের ভোট নিয়ে সন্তুষ্টির কথা শুনিয়েছেন।

Top
error: Content is protected !!