এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মাকেনের পর দিল্লি কংগ্রেস সভাপতির পদে কে? জল্পনা তুঙ্গে

মাকেনের পর দিল্লি কংগ্রেস সভাপতির পদে কে? জল্পনা তুঙ্গে

সম্প্রতি শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন অজয় মাকেন। আর এরপরই তীব্র জল্পনা ছড়াতে থাকে যে, তাহলে লোকসভা ভোটের আগে এই দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি পদে ঠিক কাকে বসাবেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী?

দলীয় সূত্রের খবর, দিল্লী কংগ্রেসের পরবর্তী সভাপতি হিসেবে বেশ কয়েকজনের নাম উঠে আসছে। যার মধ্যে রয়েছেন যোগানন্দ শাস্ত্রী, রাজকুমার চৌহান, হারুন ইউসুফ এবং ছত্তর সিংয়ের মত কংগ্রেস নেতারা। তবে দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি পদে বসার জন্য সবথেকে ওপরে নাম রয়েছে দিল্লিরই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতের।

আর এখানেই অনেকে মনে করছেন যে, যদি এই সময়ে দিল্লির কংগ্রেস সভাপতি পদে শীলা দীক্ষিতকে বসানো হয় তাহলে দিল্লিতে বিজেপিকে চাপে ফেলে আম আদমির সঙ্গে কংগ্রেসের জোটের রাস্তা অনেকটাই মসৃণ হবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দীর্ঘ বছর দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকা শীলা দীক্ষিতকে হারিয়ে গত 2013 সালে দিল্লির ক্ষমতা দখল করে আম আদমি পার্টি সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর কেজরিওয়ালের দিল্লিতে কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে শীলা দীক্ষিতকে যদি দায়িত্ব দেওয়া হয় তাহলে দিল্লীর রাজনৈতিক সমীকরণ অনেকটাই বদলাতে পারে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।  গত বৃহস্পতিবার রাতেই কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে নিজের শারিরীক অসুস্থতার কথা উল্লেখ করে নিজের পদ থেকে ইস্তফা দেন এই অজয় মাকেন। কিন্তু কেন হঠাৎ তিনি ইস্তফা দিলেন?

কংগ্রেসের দাবি, আসন্ন লোকসভা ভোটে সাংগঠনিক কাজকর্ম করার জন্যই অজয় মাকেন নিজের পদ থেকে ইস্তফা দিলেন। এমনকি তাঁকে এবারের লোকসভা ভোটে যেকোনো একটি আসন থেকে দাঁড়ও করাতে পারেন রাহুল গান্ধী। আর এই অজয় মাকেন ইস্তফা দেওয়ার পর থেকেই গুঞ্জন শুরু হয় যে, তাহলে কি দিল্লির পরবর্তী কংগ্রেস সভাপতির পদে বসছেন শিলা দীক্ষিত?

এদিন এই প্রসঙ্গে সেই শীলা দীক্ষিত বলেন, “দল, হাইকমান্ড এবং রাহুল গান্ধী যা সিদ্ধান্ত নেবেন তা আমাদের সকলকে মানতে হবে।” সব মিলিয়ে এখন অজয় মাকেনের পর দিল্লির কংগ্রেস সভাপতি পদে ঠিক কাকে বসান রাহুল গান্ধী এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!