এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “বিতর্কিত” তাপস গড়ে “মমতা-ঘনিষ্ঠ” ও “রাজনৈতিক” মহুয়া প্রার্থী হতেই নতুন উদ্দীপনায় কৃষ্ণনগরে ঝাঁপাচ্ছে তৃণমূল

“বিতর্কিত” তাপস গড়ে “মমতা-ঘনিষ্ঠ” ও “রাজনৈতিক” মহুয়া প্রার্থী হতেই নতুন উদ্দীপনায় কৃষ্ণনগরে ঝাঁপাচ্ছে তৃণমূল


2009 সালের পর 2014 সালে কৃষ্ণনগরের তৃণমূলের প্রার্থী হয়ে জয়লাভ করে সংসদে গিয়ে ছিলেন বিশিষ্ট অভিনেতা তাপস পাল। কিন্তু সাংসদ হওয়ার পর একাধিক ব্যাপারে বিতর্কিত মন্তব্য করে কার্যত খবরের শিরোনামে চলে এসেছিলেন তিনি। এরা খায় সাধারণ মানুষের কাজকর্মে খুব একটা তিনি সময় দেন না বলেও দলের একাংশ তরফে নানা অভিযোগ উঠতে শুরু করেছিল সেই তৃণমূল সাংসদ তাপস পালের বিরুদ্ধে।

কিন্তু আসন্ন 2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে সেই তাপস পালকেই তৃনমূল প্রার্থী করবে কি না তা নিয়ে যখন বিভিন্ন মহলে তৈরি হয়েছিল প্রবল গুঞ্জন, ঠিক তখনই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রে কিছুটা রাজনৈতিক ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত সুবক্তা মহুয়া মৈত্রকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন।

আর মহুয়া দেবীকেই প্রার্থী হিসেবে পেয়ে এখন প্রবল উৎসাহ ও আনন্দে ফেটে পড়ছেন এই কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। ইতিমধ্যেই দলীয় প্রার্থী মহুয়া মৈত্রকে সাথে নিয়ে জোর প্রচার শুরু করে দিয়েছে এখানকার তৃনমূলের কর্মী-সমর্থকরা।

জয়ের ব্যাপারে কার্যত একপ্রকার নিশ্চিত তারা। এমনকি অতীতে দলীয় সাংসদ তাপস পাল যেভাবে সাধারণ মানুষকে এড়িয়ে চলতেন, মহুয়া মৈত্র সাংসদ হলে তিনি এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি দলীয় সংগঠনকেও অনেকটাই চাঙ্গা করতে সক্ষম হবেন বলে আশাবাদী তৃনমূলের নীচুতলার কর্মী সমর্থকেরা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে কালিগঞ্জ ব্লক তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি সুরেশ আগরওয়াল বলেন, “আগের দুবারের সংসদ সদস্যের সঙ্গে দলের নেতাকর্মীদের তেমন যোগাযোগ ছিল না। তাকে নিয়ে অনেক বিতর্কও তৈরি হয়েছিল। কিন্তু এবার কৃষ্ণনগর কেন্দ্রে মহুয়া মৈত্র প্রার্থী হওয়ায় আমরা প্রবল খুশি। উনি রাজনৈতিক মানুষ হওয়ায় এবার আমাদের এলাকার অনেক উন্নয়ন হবে।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে নাকাশিপাড়া ব্লকের বেথুয়াডহরি 1 গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূল কর্মী রঘু মন্ডল বলেন, “বিগত দিনে সেভাবে কোনো কাজ হয়নি। কিন্তু মহুয়াদি সাধারণ কর্মী থেকে নিচুতলার কর্মীদের সঙ্গে যেভাবে মিশছেন তাতে আমরা নিশ্চিত যে, উনি সাধারন মানুষদের সমস্ত দাবি দাওয়া পুরন করবেন।”

অন্যদিকে বিধায়ক হিসেবে মহুয়া মৈত্র যে কাজ করেছেন তা এককথায় অনবদ্য বলে জানান পলাশীপাড়া বিধানসভা কেন্দ্রের পলসন্ডা 1 পঞ্চায়েতের এক তৃণমূল কর্মী হাবু মন্ডল। জয়ের ব্যাপারে তিনি কতটা আশাবাদী? এদিন এই প্রসঙ্গে কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মহুয়া মৈত্র বলেন, “কৃষ্ণনগরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বা অমিত শাহও যদি দাড়ান, তাহলেও আমি এই কেন্দ্র থেকে জিতব।”

সব মিলিয়ে বিগত দিনে সাংসদ থাকা তাপস পালের ওপর ক্ষোভ উগরে দিয়ে কৃষ্ণনগরের বর্তমান তৃণমূল প্রার্থী মহুয়া মৈত্রকে সমর্থন করার কথা জানিয়ে কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্র আরও একবার দখল করতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে তৃণমূলের সাধারণ কর্মী সমর্থকরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!