এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বরফ গলার স্পষ্ট ইঙ্গিত! আজই কি মহারাষ্ট্রে বিজেপি- শিবসেনার জোট সরকারের ঘোষণা?

বরফ গলার স্পষ্ট ইঙ্গিত! আজই কি মহারাষ্ট্রে বিজেপি- শিবসেনার জোট সরকারের ঘোষণা?

 

অবশেষে কি জটিলতা কাটতে চলেছে মহারাষ্ট্রের! শিবসেনা এবং বিজেপির যে সংঘাত শুরু হয়েছিল, তা

কি অবশেষে শেষের মুখে! এখন এইসব প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে সর্বত্র। সূত্রের খবর, আজ অবশেষে বৈঠকে বসতে চলেছে ভারতীয় জনতা পার্টি এবং শিবসেনা। আর এই বৈঠকেএই দুইপক্ষ একটা ঐকমত্যে আসতে পারে বলে মনে করছেন একাংশ। জানা গেছে, এদিন এক বৈঠকের পর বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, আগামীকাল রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে তাদের তরফ সরকার গঠনের দাবি জানানো হবে। কিন্তু সেই সরকারি শিবসেনা থাকবে কিনা, তা নিয়ে অবশ্য কোনো কথা বলা হয়নি। তবে মহারাষ্ট্রে বিজেপি এবং শিবসেনার জোট সরকারই গঠিত হচ্ছে বলে এদিন জানিয়ে দিয়েছে গেরুয়া শিবির।

অন্যদিকে এই ব্যাপারে ভিন্ন সুর শোনা গেছে শিবসেনা নেতৃত্বের গলায়। তাদের দাবি, তারা চাইছেন যে বিজেপি একক বৃহত্তম দল হিসেবেই রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করুক। আর যদি বিজেপি সেটা করে, তাহলে তাদের কাছে তা সুসংবাদ। কিন্তু তারা নিজেদের দাবি থেকে কোনোভাবেই সরে আসবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে শিবসেনা।

এদিন এই প্রসঙ্গে শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বলেন, “বিজেপির সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। এবার আমাদের পক্ষ থেকে উদ্ধব ঠাকরে এই সিদ্ধান্ত নেবেন। আমরা রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেছি। রিপাবলিকান পার্টিও দেখা করেছে। কাল যদি রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে বিজেপি সরকার গঠনের দাবি জানায়, তবে সেটা তারা করবে।” বিশ্লেষকদের একাংশ বলছেন, শিবসেনা প্রথম থেকেই বিজেপির সাথে দরকষাকষি রাস্তায় হেটেছে ঠিকই। কিন্তু বর্তমানে এই বৈঠক করে তারা অনেকটাই সুর নরম করতে চলেছে বলে দাবি একাংশের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কেননা ইতিমধ্যেই শরদ পাওয়ারকে সোনিয়া গান্ধী জানিয়ে দিয়েছেন যে, শিবসেনা যদি কেন্দ্র থেকে বিজেপি সরকারের প্রতি সমর্থন তুলে নেয় তাহলেই তাদের সমর্থন করা হবে। তা না হলে তাদের সমর্থনে রাস্তায় হাঁটা হবে না। অর্থাৎ কংগ্রেসও শিবসেনার প্রতি বিনা শর্তে আকর্ষিত নয়। তাই সেদিক থেকে শিবসেনার সরকারে থাকবার জন্য বিজেপির প্রতি তাদের সুর নরম করতে পারে বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

জানা গেছে, এদিন বিজেপির বিদায় মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশের ডাকা বৈঠকে যোগ দিলেও এই বৈঠকের মূল এজেন্ডা ছিল কৃষক সমস্যা। তবে বাইরে এই সমস্যার কথা মূল এজেন্ডা হিসেবে ছড়িয়ে দেওয়া হলেও কিভাবে সরকার গঠন হবে, সেই ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে বলে খবর। জানা গেছে, শিবসেনাকে বেশি মন্ত্রক দিয়ে সরকার গঠনের দিকে এগিয়ে যেতে চাইছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই শিবসেনা তাদের সেই প্রস্তাবে রাজি হয়ে গিয়েছে।

তবে দেবেন্দ্র ফড়নবিশের বদলে নীতিন গড়করিকে মুখ্যমন্ত্রী করা হলে শিবসেনা যে অনেকটাই রাজি হয়ে যাবেন, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত প্রায় সকলেই। অন্যদিকে সংঘের পক্ষ থেকেও এখানকার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নীতিন গড়করির নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে সব মিলিয়ে এখন সরকার গঠন করতে শিবসেনা এবং বিজেপি ঐক্যমত্যে আসে কিনা, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!