এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অমানবিক মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ! কপালে টিপ পড়ার ‘অপরাধে’ বহিষ্কৃত নাবালিকা

অমানবিক মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ! কপালে টিপ পড়ার ‘অপরাধে’ বহিষ্কৃত নাবালিকা

অমানবিকতায় দৃষ্টান্ত গড়লো এবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কেরলের একটি মাদ্রাসায় পঞ্চম শ্রেণীর এক ছাত্রী এদিন কপালে চন্দনের টিপ পরে উপস্থিত হয়েছিলো। আর শুধু মাত্র এই অপরাধে ঐ ছাত্রীকে বিদ্যালয় থেকে বহিঃস্কার করা হলো। এই ঘটনার পরে ঐ ছাত্রীর বাবা সোস্যাল মিডিয়ায় সরব হলেন। অত্যন্ত উদ্বেগজনিত ভাবেই তিনি লিখলেন , ” ভাগ্য ভাল আমাদের পাথর ছোড়া হয়নি।” সাজা প্রাপ্ত ছাত্রীর বাবা উমর মালায়ালির ফেসবুক পোস্ট ইতিমধ্যেই সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। উল্লেখ্য এই পোষ্ট টি মোট  প্রায় ৭৫০০ লাইক পেয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এবং ২৭০০ শেয়ার হয়েছে । আগাগোড়া মালায়লমে লেখা এই পোষ্টে ঐ দিনের ঘটনার উল্লেখ করে উমর মালায়ালি লিখেছেন, মাদ্রাসাতে এক্সট্রা কারিকুলার অ্যাক্টিভিটির জন্য তাঁর মেয়ে নাটক করেছিল । সেখানে একটি চরিত্রের প্রয়োজনে তাঁকে চন্দনের টিপ পরতে হয়েছিল।ভাল অভিনয় করার পরেও তাকে মাদ্রাসা থেকে বহিস্কার করা হল। কারণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত কয়েকজনের নাকি তাঁর মেয়ের টিপ পরা নিয়ে তীব্র আপত্তি ছিল। তিনি এই পোষ্টে তাঁর মেয়ে পড়াশুনাতেও মেধাবী বলে জানালেন, শুধু তাই নয় নাচ-গান-অভিনয় সবকিছুতেই সে পারদর্শী। এই গুণাবলীর স্বীকৃতি স্বরূপ মাদ্রাসা থেকেই একাধিক পুরস্কারও পেয়েছে সে। এই পোষ্টে নানা মানুষে তাঁদের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে নানা মন্তব্য করেছেন।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!