এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মধ্যপ্রদেশ পুরভোটে বড় ধাক্কা খেল বিজেপি, সামনে টক্কর কংগ্রেসের

মধ্যপ্রদেশ পুরভোটে বড় ধাক্কা খেল বিজেপি, সামনে টক্কর কংগ্রেসের

লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে লড়াইটা কি ততই কঠিন হয়ে যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহর? যে রাহুল গান্ধীকে কিছুদিন আগেও ধর্তব্যের মধ্যে রাখতে না বিজেপি, সেই রাহুল গান্ধীই আজ কংগ্রেসের সভাপতি আর তারপরেই একের পর এক নির্বাচনে বিজেপিকে কার্যত নাকের জলে-চোখের জলে করে ছাড়ছে তাঁর দল। আর এর জন্য যতটা না কৃতিত্ত্ব রাহুল গান্ধীর তার থেকেও নাকি বেশি ‘কৃতিত্ত্ব’ নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহর বলে দাবি নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কংগ্রেস নেতার। তাঁর দাবি যে যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিজেপি ক্ষমতায় এসেছিল তার কোনোটিই প্রায় রক্ষিত হয় নি। উল্টে নোটবন্দী ও জিএসটি চালু করা হয়েছে ‘খামখেয়ালি’ ভাবনাচিন্তার, যাতে কোনো ভালো তো হয়ই নি উল্টে নাভিশ্বাস উঠেছে সাধারণ মানুষের। আর তারই প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে একের পর এক নির্বাচনে।

গুজরাটে গাড়ি ‘প্রায় উল্টে’ গিয়েছিল, ১৮২ আসন সংখ্যা বিশিষ্ট বিধানসভায় কোনোরকমে ক্ষমতায় আসা। আর এবার তার জের ধরেই বড়সড় ধাক্কা লাগল মধ্যপ্রদেশের পৌর নির্বাচনে। এবছরের শেষের দিকে বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন আর তার আগেই আজ পৌর নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ হতেই বড় ধাক্কা লাগল বিজেপির। বিজেপি ও কংগ্রেস দুদলই ৯টি করে পুরসভায় প্রধানের পদে জয় পেয়েছে, একটি পুরসভার প্রধানের পদে জিতেছেন নির্দল প্রার্থী। অবশ্য বিজেপির ১৯৪ জন কাউন্সিলর জয়ী হয়েছেন, অন্যদিকে কংগ্রেসের ১৪৫ জন ও ১৩ জন নির্দল কাউন্সিলর জয়ী হয়েছেন। কিন্তু সবমিলিয়ে গুজরাটের পর মাধ্যপ্রদেশেও যে কংগ্রেস ভালো লড়াই দিতে প্রস্তুত তা প্রমান হয়ে গেল আজকের ফলাফলে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহানের জনপ্রিয়তা ও কার্যকারিতা নিয়েও প্রশ্ন উঠে গিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!