এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > লোকসভা নির্বাচনের আগেই কি বাড়তে চলেছে ইপিএফের পেনশনের পরিমান? বাড়ছে জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনের আগেই কি বাড়তে চলেছে ইপিএফের পেনশনের পরিমান? বাড়ছে জল্পনা

কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডের (ইপিএফ) পেনশানের পরিমান বাড়ার প্রবল সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে লোকসভা ভোটের আগেই। এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে খুব শীঘ্রই  ইপিএফও’র অছি পরিষদের বৈঠক ডাকবেন কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ কুমার গঙ্গওয়ার। এমনটাই জানা গিয়েছে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রক সূত্র থেকে। তবে এখনো অব্দি জানা যায়নি বৈঠকের নির্ধারিত তারিখ।

উল্লেখ্য,বর্তমানে কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডের আওতায় থাকা এমপ্লয়িজ পেনশন স্কিমের (ইপিএস) গ্রাহকেরা মাসে কমপক্ষে এক হাজার টাকা পেনশান পান। সেই পেনশানের টাকা এক হাজার থেকে বেড়ে দু হাজার হতে চলেছে বলেই খবর রয়েছে। এই পরিকল্পনা কার্যকর হলে আওতাধীন কয়েক লক্ষ শ্রমিক-কর্মচারীরা আর্থিক সুবিধা পাবেন অনেকটাই।

বহুদিন ধরেই ইপিএফ-এর ন্যূনতম পেনশন বৃদ্ধি করার বিষয়টি নিয়ে টানাপোড়েন চলছে কেন্দ্রে। ইপিএফও’র অছি পরিষদের পর বৈঠকে বিষয়টি এজেন্ডায় আনা হলেও তা নিয়ে কিছু না কিছু মতবিরোধ থেকেই যাচ্ছে। এর জেরে দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া থাকা এ সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। সম্প্রতি সংসদের বাদল অধিবেশনেও ইপিএফ এর ন্যূনতম পেনশন বৃদ্ধির বিষয়টিকে নজরে আনা হয়েছে। এই ইস্যু নিয়ে শীঘ্রই কোনো সিদ্ধান্তে আসবেন বলেই সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ কুমার গঙ্গওয়ার লোকসভার প্রশ্নোত্তর পর্বে।

শ্রম সংক্রান্ত স্ট্যান্ডিং কমিটিও সম্প্রতি সংসদে পেশ করা রিপোর্টে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রককে সুপারিশ করেছে যে ইপিএসের অধীনস্থ অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীরা পেনশন হিসাবে যে অর্থ পান,তা দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজন মেটানোর জন্য যথেষ্ট নয়। তই তাদের পেনশনের ন্যূনতম মাসিক পরিমান বৃদ্ধি করা অত্যন্ত জরুরি। তবে সব দিক বিচার করে লোকসভা ভোটের আগে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে কেন্দ্র।

কিন্তু প্রশ্ন একটা থেকেই যাচ্ছে। লোকসভা ভোটকে টার্গেট করেই কি কেন্দ্র এই বিশেষ সুবিধা আনতে চলেছে? আসলে ইপিএফের ন্যূনতম মাসিক পেনশনের পরিমান বাড়িয়ে কেন্দ্রীয় সরকার উক্ত সামাজিক সুরক্ষা পরিষেবার আওতাধীন অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক- কর্মচারীদের নিজের দিকে টানার চেষ্টা করছে,এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রব্লেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রকের সূত্র থেকে আরো জানা গিয়েছে, বর্তমানে কমপক্ষে ২০ জন কর্মচারী থাকা সংস্থা-প্রতিষ্ঠানের কর্মীর মাসিক বেতন সর্বোচ্চ ১৫  হাজার টাকার মধ্যে,তাঁরা বাধ্যতামূলকভাবে ইপিএফের আওতায় থাকেন। যে ১২ % টাকা ইপিএফ খাতে তাঁরা তাঁদের মূল বেতন এবং মহার্ঘ ভাতা থেকে ‘কন্ট্রিবিউট’ করেন এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থা-কর্তৃপক্ষ ওই কর্মীর হয়ে আরও ১২ % অর্থ কন্ট্রিবিউট করে, তার ৮.৩৩ % চলে যায় ওই কর্মচারীর এমপ্লয়িজ পেনশন স্কিমের অধীনে। পরবর্তী থেকে বেতন বৃদ্ধি পেয়ে মাসে ১৫ হাজার টাকা থেকে বেশি হলেও পেনশন খাতে কন্ট্রিবিউশন কাটা হয় ওই ১৫ হাজার টাকার হিসেব দেখেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!