এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ আধিপত্য পেতে বড়সড় পরিকল্পনায় তৃণমূল কংগ্রেস – জানুন বিস্তারিত

লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ আধিপত্য পেতে বড়সড় পরিকল্পনায় তৃণমূল কংগ্রেস – জানুন বিস্তারিত

এবার পঞ্চায়েত ভোটের কৌশলকে অনুসরণ করেই আসন্ন লোকসভা ভোটে সাফল্য নিশ্চিত করার পরিকল্পনা রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের জেলা পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী ১৫ টি ব্লকের জন্যে পৃথক পৃথক পরিদর্শক নিয়োগ করেছিলেন। শুধু তাই নয়,পাশাপাশি তাঁর পরিদর্শকের নির্বাচনও ছিল অভিনব। এ ব্যাপারে বর্ষীয়ান,অভিজ্ঞতাসম্পন্ন নেতাদের পরিবর্তে দলের তরুণ তুর্কিদের উপরই ভরসা করেছিলেন তিনি।

শুভেন্দু বাবুর এই সিদ্ধান্তে প্রথমে দলীয় রাজ্য নেতৃত্বরা প্রথমে সন্দেহ প্রকাশ করলেও পরে সবাইকে চমকে দিয়ে এই পরিকল্পনাই জোর সাফল্য এনে দিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসকে। পঞ্চায়েত ভোটেই এই ফর্মুলাই কাজে লাগে মরিয়া শাসকদল। তৃণমূলের হেভিওয়েটদের বিশ্বাস,পঞ্চায়েত ভোট জয়ের এই টেকনিকই লোকসভা ভোটে সাফল্য এনে দেবে জোড়াফুল শিবিরে।

এ প্রসঙ্গে দলের জেলা কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার (বাবলা) বলেন,লোকসভা ভোটের থেকে গুরুত্বপূর্ণ এই মুহূর্তে আপাতত কিছুই নেই। ইতিমধ্যে জেলা সম্মেলন এবং একাধিক বৈঠকে লোকসভা ভোটের জন্যে নানান দলীয় কৌশল নিয়ে আলোচনা করেছেন৷ হয়েছে একাধিক সভাও। তবে লোকসভা ভোট যতোই এগিয়ে আসছে ততোই আরো বেশি করে প্রস্তুতি নিয়ে তৎপরতা শুরু হয়েছে। তৈরি করা হচ্ছে নতুন নতুন রাজনৈতিক কৌশল।

আর নতুন করে জয়ের কৌশল নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে ছোট ছোট স্তরে দলীয় পরিদর্শক নিয়োগ করা নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়েছে। যেগেতু গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে শুভেন্দুবাবুর নির্দেশ মতোই ব্লকস্তরে দলীয় পরিদর্শক নিয়োগ করে সফলতা এসেছে। তাই এবারও সেই কৌশলকে সামনে রেখেই পরিদর্শক নিয়োগ করার কথা ভাবা হয়েছে।

দলের অন্য এক হেভিওয়েট নেতার সূত্র থেকে জানা গিয়েছে,সম্প্রতি মালদহে পঞ্চায়েত প্রধানদের নিয়ে সভা করতে এসে দলীয় অন্দরে তৃণমূলস্তরে পরিদর্শক নিয়োগ নিয়ে প্রাথমিক পর্যায়ের আলোচনা সেরে রেখেছেন শুভেন্দু অধিকারী। শুধু তাই নয়,পাকুয়াহাটের দলীয় সভাতেও ব্লকের ছোট ছোট স্তরে পরিদর্শক নিয়োগের ভাবনার ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন তিনি। তবে এখনই নিশ্চিত করা হয়নি কিছুই। প্রয়োজন পড়লে তেমনটা করা হবে বলে জানিয়েছেন শুভেন্দুবাবু।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তবে তৃণমূলের জেলার এবং ব্লকের ছোট ছোট স্তরে পরিদর্শক নিয়োগ করার চিন্তাভাবনা নিয়ে মাথা ঘামাতে চায় না বিরোধীরা। এ ব্যাপারে বিজেপি’র জেলা সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র বলেন,তৃণমূল কী করবে না করবে সেটা তাঁদের দলীয় বিষয়। বিজেপি কেবল বিজেপির দলীয় পরিকল্পনা নিয়েই ব্যস্ত আপাতত।

সিপিএমের জেলা সম্পাদক অম্বর মিত্র বলেন,বামফ্রন্টের দলীয় কাঠামোর মধ্যেই তৃণমূলস্তর থেকে নেতৃত্বদানের বিষয়টি আছে। লোকসভা নির্বাচন কেন্দ্রের সরকার গড়ার প্রশ্নে, দেশের নীতির প্রশ্নে ভোট হবে। বামেরা রাজ্যের মানুষের কাছে সেই বিষয়টি বিবেচনার কথাই তুলে ধরবে।

অন্যদিকে,জেলা কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা সংসদ সদস্য আবু হাসেম খান চৌধুরী (ডালু)-র বিজেপির সুরেই বক্তব্যে জানান,তৃণমূলের ভাবনা তাঁরাই ভাববে। কংগ্রেস লোকসভা ভোটের প্রস্তুতিটা নিজেদের মতো করেই করছে। প্রসঙ্গে জানালেন,ইতিমধ্যেই দলীয় নানান কর্মসূচি নিয়ে জেলা কমিটির বৈঠক হয়েছে। একেবারে পঞ্চায়েত স্তর থেকেই এই দলীয় বৈঠক করা শুরু হয়েছে। কেন্দ্রের ক্ষমতায় কখনো কংগ্রেস থেকেছে কখনো বিজেপি।

তাই এবারে দেশের সরকার গড়ার দায়িত্ব কাদের হাতে থাকবে তা বিবেচনা করবে মানুষই। অর্থাৎ তিনি একরকম তৃণমূলকেই কটাক্ষ করে বললেন,জোড়াফুল শিবির যতোই জয়ের জন্যে নানান পরিকল্পনা করুক না কেন আসলে কেন্দ্রের লড়াইটা কংগ্রেস বনাম বিজেপির। এমনটাই অভিমত বিশ্লেষকদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!