এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > লোকসভার আগে জনসংযোগ মজবুত করতে শাসকদলের ভাবনায় নতুন “অস্ত্র”

লোকসভার আগে জনসংযোগ মজবুত করতে শাসকদলের ভাবনায় নতুন “অস্ত্র”

Priyo Bandhu Media


সামনেই লোকসভা নির্বাচন। আর সেই লোকসভা নির্বাচনের আগে নিজেদের জনসংযোগকে হাতিয়ার করে আরো বেশি করে মানুষের কাছে পৌঁছোতে উদ্যোগী হচ্ছে রাজ্যের শাসক দল। আর তাইতো এবারে নিতুড়িয়ার পারবেলিয়া রিভার সাইড ময়দানে শাসকদলের কর্মী-সমর্থকদের দিয়ে একটি পিকনিকের আয়োজন করল ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বরা। সূত্রের খবর, গতকালের এই পিকনিকে অংশ নিয়েছিলেন প্রায় ছয় হাজার তৃণমূল কর্মী সমর্থক।

জানা যায়, প্রতি বছরই এই পিকটি বছরের শুরুর দিনেই অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু এবার ব্রিগেড সমাবেশে থাকার কারণে তা পিছিয়ে গতকাল করা হয়েছে। এদিনের এই পিকনিকে প্রায় সমস্ত অঞ্চল, ব্লক ও জেলা কমিটির মূল, যুব ও শাখা সংগঠনের নেতৃত্বরা উপস্থিত ছিলেন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, প্রথম ব্লক সভাপতি শশীভূষণ প্রসাদ যাদব এই পিকনিকের আয়োজন করলে পরবর্তীতে দুষ্কৃতীদের গুলিতে তিনি নিহত হওয়ার পর তাঁরই ভাই তথা বর্তমান ব্লক সভাপতি শান্তি ভূষণ প্রসাদ যাদবের উদ্যোগেই এই পিকনিক হয়ে আসছে। তবে শুধু খাওয়া দাওয়াই নয়, কোন এলাকায় ঠিক কি অবস্থা রয়েছে দলীয় সংগঠনের! সেই ব্যাপারেও এই বনভোজনের মধ্যে দিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের ধারণা, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে জনসংযোগকে হাতিয়ার করার জন্যই এই পিকনিকের বন্দোবস্ত করেছে শাসক দল। এদিন এই প্রসঙ্গে শালতোড় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সুমিত সাগর প্রসাদ যাদব বলেন, “প্রতিবছরই তৃণমূলের কর্মী হিসেবে আমরা এই পিকনিক অংশগ্রহণ করি। এদিনের পিকনিকে অংশগ্রহণ করা অনেক চেনা অচেনা মানুষের সঙ্গে কথা হলো।”

অন্যদিকে এই পিকনিককে মিলন উৎসব রূপে অভিহিত করেন জেলা পরিষদের সদস্য তথা এই ব্লকের মহিলা তৃনমূলের সভানেত্রী সরিতা তুরি। হঠাৎ কেন এই পিকনিক? এদিন এই প্রসঙ্গে পিকনিকের মূল উদ্যোক্তা কথা ব্লক তৃণমূলের সভাপতি শান্তিভূষন প্রসাদ যাদব বলেন, “প্রতিবছরই আমরা এই পিকনিকের আয়োজন করে থাকি। এবার ব্রিগেড সভা থাকার কারণে তা কয়েক দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আর তাই এদিন এই পিকনিক হয়েছে।”

সব মিলিয়ে এবার জনসংযোগকে বাড়িয়ে তুলতে পিকনিকের নতুন অস্ত্র প্রয়োগ করছে রাজ্যের শাসক দল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!