এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > লোকসভা ভোটের আগে ‘বাংলা’ নিয়ে কি প্রবল সংঘাতের পথে প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রী? বাড়ছে জল্পনা

লোকসভা ভোটের আগে ‘বাংলা’ নিয়ে কি প্রবল সংঘাতের পথে প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রী? বাড়ছে জল্পনা

পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন করে বাংলা রাখাকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরেই চলছে চাপানউতোর।আর এবার ফের সংঘাত লাগলো মোদী-মমতার । মমতার ‘বাংলা’ নিয়ে শুরু হয়েছে সংঘাত। লোকসভা ভোটের আগে এই সংঘাত যে মোদী-মমতার লড়াইয়ে আর একটি নতুন মাত্রা যোগ করতে পারে এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

যদিও প্রশাসনিক সূত্র অনুযায়ী জানা যাচ্ছে এই সংঘাত নতুন নয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চান পশ্চিমবঙ্গের নাম বদল করতে। তাঁর ইচ্ছে এখন থেকে ‘বাংলা’ নামেই এই রাজ্যকে চিনুক বিশ্ব।

কিন্তু সেই উদ্যোগে বারেবারে বাধা দিচ্ছে কেন্দ্রের মোদী সরকার অভিযোগ এমনটাই।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো  করুন এই লিঙ্কেখবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক

নবান্নর সূত্রে খবর, প্রাথমিক ভাবে ঠিক হয়েছিল, রাজ্যের নাম তিনটি ভাষায় তিন রকম হবে। বাংলায় ‘বাংলা’। ইংরেজিতে ‘বেঙ্গল’ ও হিন্দিতে হবে বঙ্গাল। সেই মতো বিধানসভায় প্রস্তাবও পাস হয় এবং তা পাঠিয়ে দেয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে।

প্রশাসনের এক শীর্ষ কর্তার কথায়, “শুরুতেই আপত্তি তোলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। রাজনাথ সিংয়ের মন্ত্রক থেকে জানানো হয়, তিনটি ভাষাতেই এক ধরনের নাম নির্ধারণ করতে। কেন্দ্রের সেই প্রস্তাব মেনে নেয় মমতার সরকার। এর পর ঠিক হয় রাজ্যের নাম হবে ‘বাংলা’। বাংলা, ইংরেজি ও হিন্দি তিনটি ভাষাতেই তা হবে। সেই প্রস্তাবও বিধানসভায় পাস করানো হয়। তার পর তা আবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে পাঠানো হয়।”

তার পর দীর্ঘদিন কেটে গেলেও কোনও জবাব মেলেনি মোদী সরকারের কাছ থেকে। ফলে রাজ্যের প্রশাসনিক মহলে ক্রমশ ধোঁয়াশার সৃষ্টি। রাজ্যের তরফে এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে চিঠি পাঠানো হয়।এখনও পর্যন্ত সেই চিঠিরও জবাব মেলেনি বলে খবর।

তবে নয়াদিল্লির একটি সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, এবার ‘বাংলা’ নাম নিয়েই ভাবনাচিন্তা করছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। আদৌ পশ্চিমবঙ্গের নাম বাংলা করা উচিত কি না,এখন সেই প্রশ্নই তুলছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কেন এমন প্রশ্ন তোলা হচ্ছে কেন্দ্রের তরফে? নয়াদিল্লি সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ ও বাংলার মধ্যে অনেক মিল রয়েছে।আর বাংলাদেশ আমাদের প্রতিবেশী দেশ । সেক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে বিড়ম্বনা তৈরির সম্ভাবনা রয়েছে ।আন্তর্জাতিক বিতর্কের সূত্রপাতও হতে পারে।

আর তাতে ভারতের বিদেশ নীতির উপর প্রভাব পড়বে বলেই মনে করছে কেন্দ্র। এমনকী বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সৌর্হাদ্যপূর্ণ সম্পর্কেও প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তাই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা আপাতত পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের প্রস্তাব পাঠিয়েছে বিদেশ মন্ত্রকের কাছে।বর্তমানে সুষমা স্বরাজের মন্ত্রকই গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখবে।

নয়াদিল্লির এক সূত্রের দাবি, বিষয়টি কার্যত এখন বিশবাঁও জলে রয়েছে। কারণ, বিদেশ মন্ত্রক যদি অনুমোদন দেয় তারপরই তা মন্ত্রিসভায় পাস করাতে হবে। তৈরি হবে নাম সংশোধনী বিল। সেই বিল পেশ করা হবে সংসদে। সংসদের অনুমোদন মিললে তবেই পশ্চিমবঙ্গের নাম হবে ‘বাংলা’।তাই এখন পশ্চিমবঙ্গ থাকছে পশ্চিমবঙ্গেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!