এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > লোকসভার আগে শাসকদলের স্বস্তি বাড়িয়ে গোষ্ঠী কোন্দল ভুলে একমঞ্চে সব শীর্ষনেতা

লোকসভার আগে শাসকদলের স্বস্তি বাড়িয়ে গোষ্ঠী কোন্দল ভুলে একমঞ্চে সব শীর্ষনেতা

দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হুঁশিয়ারির পরেও কোচবিহার জেলা তৃনমূল কংগ্রেসের অন্দরে তেমনভাবে ঐক্য দেখা যাচ্ছিল না। কোনো অনুষ্ঠান মন্ত্রী একজনকে দেখা গেলে বিরোধী গোষ্ঠির অপর নেতা সেখান অনুপস্থিত থাকতেন। কিন্তু এবারে এই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখালো কোচবিহার জেলার ছাত্র যুব উৎসবের উদ্বোধনী মঞ্চ।

জানা যায়, এদিনের এই অনুষ্ঠান মঞ্চে শাসক দলের প্রায় সমস্ত বিধায়ক থেকে মন্ত্রীরা একসারিতেই বসেছিলেন। সূত্রের খবর, গতকাল থেকে দুইদিন ব্যাপী কোচবিহারের উৎসব অডিটোরিয়ামে রাজ্য সরকারের উদ্যোগে জেলার যুব কল্যাণ ও ক্রীড়া দফতরের উদ্যোগে ছাত্র যুব উৎসবের সূচনা হয়েছে।

এদিন যার উদ্বোধন করেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। আর রবীন্দ্রনাথ ঘোষের পাশাপাশি এই মঞ্চে উপস্থিত থাকতে দেখা গেছে সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়, বনমন্ত্রী বিনয় কৃষ্ণ বর্মন, বিধায়ক মিহির গোস্বামী, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উমাকান্ত বর্মন, পুরসভার চেয়ারম্যান ভূষণ সিং, জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ সুচিস্মতা দেবশর্মা, বরুণ দত্ত সহ অন্যান্যদের। তবে সব থেকে আশ্চর্যজনক হল, এদিনের মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সেই রবীন্দ্রনাথ ঘোষেরই প্রবল বিরোধী হিসেবে পরিচিত অভিজিৎ দে ভৌমিক।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর এই ঘটনাকে দেখেই অনেকে মনে করছেন, তাহলে কি অবশেষে লোকসভা নির্বাচনের আগে জেলায় সমস্ত রকম দ্বন্দ্ব ভুলে একসাথে হাতে হাত ধরে লড়তে চাইছে শাসক দল! এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা রাজ্যের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “আমাদের মধ্যে কোনো দিন কোনো অনৈক্য ছিল না।”

একই কথা বলেছেন জেলা রাজনীতিতে তৃণমূলের রবি ঘোষের প্রবল বিরোধী বলে পরিচিত সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়। এদিন তিনি বলেন, “আমাদের মধ্যে কোথাও কোনো বিভাজনের প্রশ্নই নেই। এদিন সকলেই ছাত্র যুব উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসেছিলেন।”

তবে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা যতই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা অস্বীকার করুন না কেন, এদিন এই জেলার ছাত্র যুব উৎসবের উদ্বোধন কে করবে তা নিয়ে প্রথমে একটু টানাপোড়েনের সৃষ্টি হয়। পরে সমস্ত জল্পনাকে কাটিয়ে সেই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন রাজ্যের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষই। সব মিলিয়ে এবার এক মঞ্চে কোচবিহার জেলায় শাসকদলের সমস্ত বিধায়ক থেকে মন্ত্রীরা বসায় জেলায় বিজেপির বাড়বাড়ন্তের জন্যই তৃণমূলের এই ঐক্য যে স্পষ্ট হয়ে ফুটে উঠতে শুরু করেছে সেই ব্যাপারে একপ্রকার নিশ্চিত ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!