এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > লোকসভায় লড়াই হয়ে যাওয়া হেভিওয়েটদের এবার বিধানসভা নির্বাচনে ঝড় তুলতে পাঠাচ্ছে গেরুয়া শিবির

লোকসভায় লড়াই হয়ে যাওয়া হেভিওয়েটদের এবার বিধানসভা নির্বাচনে ঝড় তুলতে পাঠাচ্ছে গেরুয়া শিবির

দীর্ঘ প্রচারের পর নিজ নিজ কেন্দ্রে নির্বাচন সমাপ্ত হওয়ার পর দলীয় প্রার্থীরা ভেবেছিলেন যে তারা কিছুটা হলেও এবার বিশ্রাম পাবেন। কিন্তু না, বিজেপির পক্ষ থেকে এবার বাংলাকে বাড়তি নজর দেওয়া হয়েছে। আর তাই লোকসভা নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই রাজ্যের বিধানসভা উপনির্বাচনে হবিবপুরে যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে, সেখানে রাজ্যের বিভিন্ন কেন্দ্রের লোকসভার প্রার্থী হওয়া হেভিওয়েটদের প্রচার করবার জন্য পাঠিয়ে দিচ্ছে গেরুয়া শিবির।

জানা গেছে, হবিবপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে রাজ্য এবং কেন্দ্রের হেভিওয়েট বিজেপি নেতাদের এনে সেখানে প্রচারে ঝড় তুলতে চায় বিজেপি। প্রসঙ্গত, এই হবিবপুর বিধানসভার বাম বিধায়ক খগেন মুর্মু লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে যোগ দিলে এবং উত্তর মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের তিনি বিজেপি প্রার্থী হলে সেই হবিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রটি শূন্য হয়ে যায়। আর তারপরই সেখানে বিধানসভা উপনির্বাচনের দামামা বাজে। আর তাই যেনতেন প্রকারেন সেই হবিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রটি এবার নিজেদের দখলে রাখতে জোর প্রচার শুরু করে দিয়েছে গেরুয়া শিবির।

বিজেপি সূত্রের খবর, হবিবপুর বিধানসভার বামনগোলা ব্লক এবং হবিবপুর ব্লকে দুটি বৃহৎ মাপের জনসভা করা হবে। আর যে জনসভায় আনা হতে পারে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মহিলা মোর্চার নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়, রূপা গাঙ্গুলী, বাবুল সুপ্রিয়র মত একঝাঁক নেতৃত্বকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এদিকে 12 মে লোকসভা নির্বাচন শেষ হয়ে যাওয়ায় অনেক হেভিওয়েট নেতাদের ভোট শেষ হয়ে যাবে। ফলে সেই সমস্ত নেতারা হবিবপুরে সময় দিতে পারবেন। পাশাপাশি বিজেপির কেন্দ্রীয়স্তরের একাধিক নেতাও সেই হবিবপুরে প্রচার করতে আসতে পারেন বলে খবর রয়েছে। তবে বিজেপির এই হেভিওয়েটদের দিয়ে সভা করানোর পরিকল্পনা পেছনে বেশ কিছু কারণ রয়েছে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

কেননা বিধানসভা ভোটের এলাকার ছোট হওয়ার জন্য পাড়া বৈঠক, উঠোন বৈঠকের উপরে বেশি জোর দিতে হয়। আর সেটাকে মাথায় রেখেই সেই ছোট ছোট বৈঠকের মধ্যে দিয়ে নিজেদের প্রচার শুরু করেছিল বিজেপি। আর দ্বিতীয়ত, প্রথমেই হেভিওয়েটদের দিয়ে প্রচার না করিয়ে শেষ মুহূর্তে সেই হবিবপুর হেভিওয়েটদের নিয়ে এসে চমক দিতে চাইছে গেরুয়া শিবির। আর তাইতো ষষ্ঠ দফা নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর যে সমস্ত কেন্দ্রের হেভিওয়েট প্রার্থী ছিল, তাদের সেই মালদার হবিবপুরে নিয়ে এসে নির্বাচনী প্রচারে ঝড় তুলতে তৎপর তারা।

এদিন এই প্রসঙ্গে মালদা জেলা বিজেপির প্রবক্তা অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, “নির্বাচনী প্রচারের একেবারে শেষ পর্বে দুটি বড় জনসভা করার পরিকল্পনা আগেই নেওয়া হয়েছিল। সোমবার আমরা এই দুটি সভার নির্ঘণ্ট তৈরি করব। আর সভা হওয়ার পাশাপাশি আমরা দুটো পৃথক মিছিল করব। যার প্রস্তুতি আমরা শুরু করেছি।” সব মিলিয়ে এবার লোকসভা নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই হবিবপুর বিধানসভা উপনির্বাচন নিয়ে আশাবাদী গেরুয়া শিবির হেভিওয়েটদের নিয়ে এসে সেই হবিবপুরে পদ্ম ফোটাতে তৎপর হয়ে উঠল।

Top
error: Content is protected !!