এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > “লোকসভা নির্বাচনে ৪২ এ ৪২ ওদের স্বপ্নই থেকে যাবে।” দাবি বিজেপি হেভিওয়েট নেত্রীর

“লোকসভা নির্বাচনে ৪২ এ ৪২ ওদের স্বপ্নই থেকে যাবে।” দাবি বিজেপি হেভিওয়েট নেত্রীর


“লোকসভা নির্বাচনে ৪২ এ ৪২ ওদের স্বপ্নই থেকে যাবে।” দাবি বিজেপি হেভিওয়েট নেত্রী লকেট চট্ট্যোপাধ্যায়ের। গতকাল বর্ধমানের নীলপুরে একটি জনসভা হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। আর সেখানেই আগামী লোকসভা নির্বাচন নিয়ে নিজেদের অবস্থান বোঝাতে গিয়ে এদিন তিনি এই মন্তব্য করেন।

এদিন তিনি সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন যে, আগামী লোকসভা ভোটে বিজেপি ভালো ফল করবে। সাথেই এদিন ব্রিগেড নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন। তিনি বলেন যে, প্রতিবারই আমরা দেখেছি ব্রিগেডকে ঘিরে একটা গিমিক তৈরির চেষ্টা করে তৃণমূল। তাই ব্রিগেড সভা না হওয়া পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা বুঝে উঠতে পারছে না সেখানে কী হবে। এবারেও তাই হয়েছে।

এরপরেই লোকসভা ভোট নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বলেন যে, বিজেপি ভালো ফল করবে। আর এবারের ভোটেও মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় বুঝতে পারবেন, তাঁকে একাই লড়তে হবে। কেউ তাঁর সঙ্গে নেই। ওরা ভেবেছে পঞ্চায়েতে যেভাবে ভোট লুট করে জিতেছে লোকসভাতেও তাই করবে। তাই ওরা ৪২-এ ৪২ এর কথা ভাবছে। কিন্তু, ৪২ এ ৪২ ওদের স্বপ্নই থেকে যাবে।

 

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সাথেই তিনি এদিনের রথযাত্রা নিয়ে সুপ্রিমকোর্ট এর রায় নিয়ে মুখ খোলেন। তিনি এদিন জানান যে, রথযাত্রা হলো আসলে গণতন্ত্রযাত্রা। কিন্তু নানারকমভাবে ষড়যন্ত্র করে রথযাত্রা বলে প্রচার করা হয়েছে। রাজ্যের গোয়েন্দারা রিপোর্ট তৈরি করে আদালতে জানিয়েছে, রথযাত্রা করলে রাজ্যে না কি দাঙ্গা লেগে যেতে পারে। অশান্তি সৃষ্টি হতে পারে। এইভাবে অপপ্রচার করে বিজেপি -কে থামানো যাবে না সে কথাও স্পষ্ট করে দেন তিনি।

এর পরেই তিনি অভিযোগ করে জানান যে, এর আগে রাজ্যের প্রতি জেলায় বিজেপি সভা, মিটিং, মিছিল করেছে। কোথাও আজ পর্যন্ত দাঙ্গা লাগেনি, উলটে মানুষ আশীর্বাদ করেছে। আজ ষড়যন্ত্র করে গণতন্ত্রকে রথযাত্রার রূপ দিয়ে বন্ধ করার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু আমরা সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানাচ্ছি। কারণ আমরা জানি এই গণতন্ত্র যাত্রা বাংলার মানুষকে প্রভাবিত করেছে। গণতন্ত্র যাত্রা নাও হতে পারে কিন্তু প্রচুর মানুষের আশীর্বাদে পেয়েছি। আগামী দিনে গণতন্ত্র বাঁচাও নিয়ে আমাদের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বিভিন্ন জায়গায় সভা-সমিতি করতে আসছেন। যাত্রা হয়নি তাতে আমাদের হতাশা নেই। আমরা এবার সভা করব।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!