এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > লোকসভা ভোটে বিজেপি হঠাতে সংখ্যালঘুদের সমর্থন চাইতে এবার মাঠে নামল তৃনমূল

লোকসভা ভোটে বিজেপি হঠাতে সংখ্যালঘুদের সমর্থন চাইতে এবার মাঠে নামল তৃনমূল

কেন্দ্রের মোদী সরকার মুসলিমবিদ্বেষী। সাম্প্রদায়িক বিভাজনে সবসময়েই ব্যাস্ত থাকে বিজেপি – বিভিন্ন সময়েই এই দাবি করে এসেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি কেন্দ্র থেকে 2019 এ মোদীকে সরাতেও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ তিনি। সারা দেশে তাঁর নেতৃত্বে তৈরি হয়েছে বিরোধী মহাজোটও। এবার সেই বিরোধী মহাজোটে বাংলার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মন পেতে মরিয়া হয়ে উঠল রাজ্যের শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস।

সূত্রের খবর, গত শনিবার রাজ্যের তিনশোর মত সংখ্যালঘু সমাজের বিশিষ্ট মানুষদের নিয়ে বেনিয়াপুকুরের শিক্ষাকেন্দ্রের অডিটোরিয়ামে একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে তৃনমূল নেতৃত্ব। এদিনের এই বৈঠকে তৃনমূলের তরফে উপস্থিত ছিলেন দলের সর্বভারতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও ব্রায়েন, সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, নাদিমুল হক, ইমরান সহ প্রমুখ নেতৃত্বরা।

অন্যদিকে সংখ্যালঘু সমাজের পক্ষ থেকে অনেক বিশিষ্ট মানুষ এই অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন। জানা যায়, এইখানে সংখ্যালঘু সমাজের 20 জনের মত ব্যাক্তি তৃনমূল নেতাদের কাছে তাঁদের অভাব অভিযোগ বলার সুযোগ পান। রাজ্যে পালাবদলের পর থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে যেভাবে সংখ্যালঘুদের উন্নয়ন হয়েছে এদিন সেই ব্যাপারে রাজ্য সরকারের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন নাখোদা মসজিদের ইমাম মহম্মদ শফিফ কাসিম, ইদের সময় কোলকাতার নমাজপাঠের দ্বায়িত্বে থাকা কারি ফজরুল রহমান, সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের মহম্মদ কামরুজ্জামান, শিক্ষাবিদ ফারুক আহমেদ সহ অন্যান্যরা।

অনেকে আবার দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পক্ষে জোরালো সওয়াল করেন। তবে এদিনের এই বৈঠকে রাজ্যে সংখ্যালঘুদের কিছু বিষয়ে সমস্যার কারনে তৃনমূলের ডেরেক-সুদীপদের কাছে ক্ষোভও প্রকাশ করেন অনেকে। চাকরি না পাওয়া, মাদ্রাসায় শিক্ষক নিয়োগে খামতি, আনএডেড মাদ্রাসাগুলি স্বীকৃতি না পাওয়া সহ একাধিক ইস্যু এর মধ্যে রয়েছে। এমনকী বহুদিন যাবৎ এই সংখ্যালঘু সমাজের সাথে বৈঠকে বসেননি মুখ্যমন্ত্রী বলেও এদিন অভিযোগ করেন অনেকে। এদিকে সংখ্যালঘু সমাজের এই সমস্ত কথা আগামী 15 দিনের মধ্যে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কানে পৌছে দেবেন বলে জানান উদ্যোক্তারা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

শুধু তাই নয়, এদিন বাংলার সংখ্যালঘু ভোট পেতে কেন্দ্রের মোদী সরকারকে কটাক্ষ করে তৃনমূলের ডেরেক ও ব্রায়েন এবং সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়রা বলেন, “বিজেপি সরকার বেটি বাচাও বেটী পড়াও প্রকল্পে 700 কোটি দিয়েছে। আর কন্যাশ্রী প্রকল্পে শুধু বাংলার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 5 হাজার 600 কোটি টাকা দিয়েছেন। আগের থেকে সব কিছুতেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলা। তাই এই বাংলাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে আপনাদের জন্য মুখ্যমন্ত্রী যে উন্নয়ন করছেন তাতে আপনারা তৃনমূলের পাশে থাকুন।” সব মিলিয়ে এবার লোকসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে সংখ্যালঘুদের টানতে পদক্ষেপ নিল তৃনমূল কংগ্রেস।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!