এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মন্ত্রীত্ব পাচ্ছেন রত্না, লোকসভা নির্বাচন নিয়ে কিন্তু চিন্তা বাড়ছে বিজেপির

মন্ত্রীত্ব পাচ্ছেন রত্না, লোকসভা নির্বাচন নিয়ে কিন্তু চিন্তা বাড়ছে বিজেপির

Priyo Bandhu Media

মন্ত্রী না হলেও এতদিন বিধায়ক হিসেবেই নিজের জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন চাকদহের তৃণমূল বিধায়ক রত্না ঘোষ। কিন্তু হঠাৎই কলকাতা থেকে পাওয়া খবরে খুশির আমেজ তৈরি হলো সেই চাকদহে। কারণ অবশেষে মন্ত্রী পদ পেতে চলেছেন রত্নাদেবী। আর স্থানীয় বিধায়কের এই মন্ত্রী পদ পাওয়াতেই এখন চাপ বাড়তে শুরু করেছে বিজেপির অন্দরে।

কেননা কদিন আগেই রাণাঘাট কোর্ট মোড়ের জেলা কার্যালয়ে বিজেপি নেতৃত্বদের একাংশ নিজেদের মধ্যে বৈঠকে দাবি করেন যে, চাকদহ বিধানসভা এলাকায় তারা এবার ভালো ফল করবে। এমনকি রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রেও তাদের ভোট আগের তুলনায় অনেকটাই বাড়বে। কিন্তু বিজেপিকে ঠেকাতে এবার সেই চাকদহের তৃনমূল বিধায়িকাকেই মন্ত্রী করার সিদ্ধান্ত নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কিন্তু কে এই রত্না ঘোষ? কিই বা তার রাজনৈতিক পরিচয়? সূত্রের খবর, উত্তর 24 পরগনার হাবরার শ্রী চৈতন্য কলেজে পড়াশোনা করার সময় ছাত্র রাজনীতি দিয়েই নিজেদের রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন রত্নাদেবী। পরবর্তীতে 1996 সালে কংগ্রেসের হয়ে হরিণঘাটা কেন্দ্র থেকে লড়লেও সিপিএমের মিলি হীরার কাছে হারতে হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু রাজনীতিতে ভেঙে গেলেও যে মচকাতে নেই তা ভালই জানেন রত্নাদেবী। তাইতো কংগ্রেস থেকে কোনো মতেই বেরিয়ে আসেননি তিনি। পরবর্তীতে কংগ্রেস থেকে বেরিয়ে তৃণমূলে যোগ দেন।

নদীয়া জেলা যুব তৃনমূলের সভাপতি সহ অন্যান্য বিভিন্ন দায়িত্ব সামলাতে হয়েছে তাঁকে। পরে 2014 সালের চাকদহের বিধায়ক নরেশচন্দ্র চাকি প্রয়াত হলে সেখানে উপনির্বাচনে লড়ে প্রথম বিধায়ক হয়েছিলেন এই রত্না ঘোষ। আর এরপর ফের 2016 র বিধানসভা নির্বাচনে চাকদহ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়ী হন তিনি। এদিকে রত্না ঘোষের মন্ত্রিত্ব পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তে না পড়তেই খুশির হাওয়া ছড়িয়ে পড়েছে গোটা চাকদহে।

এদিন এই প্রসঙ্গে স্থানীয় সিনিয়ার সিটিজেন ফোরামের সভাপতি মনোজ চক্রবর্তী বলেন, “খবরটা শোনার পরই বিধায়কের সাথে আমার কথা হয়েছে। আশা করি এলাকায় ভালো কাজ হবে।” একই কথা বলেন চাকদহ পুরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলার দিবাকর চক্রবর্তীও। কিন্তু শুধু শাসকদলের নেতা মন্ত্রীরাই নয়, রত্নাদেবী মন্ত্রী হওয়ায় খানিকটা চাপে পড়লেও উনি যে এলাকার উন্নয়ন করবেন সেই ব্যাপারটি স্বীকার করে নিচ্ছেন বিজেপির স্থানীয় নেতাকর্মীরাও।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

যদিও বা এই ব্যাপারে বিজেপির দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি জগন্নাথ সরকার বলেন, “কে মন্ত্রী হল তাতে কিছু আসে যায় না। চাকদহ এবং রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রে আমরাই এগিয়ে থাকবো।” তবে যাকে নিয়ে এত কিছু সেই হবু মন্ত্রী রত্না ঘোষ কি বলছেন? এদিন এই প্রসঙ্গে রত্না ঘোষ বলেন, “আমি সব সময় মানুষের পাশে থেকে কাজ করেছি। উন্নয়ন করার চেষ্টা করেছি। মন্ত্রী হলেও তার কোন পরিবর্তন হবে না। দিদি আমাকে যে দায়িত্ব দেবেন আমি তা পালন করার চেষ্টা করব।”

সব মিলিয়ে এবার চাকদহের তৃণমূল বিধায়ক রত্না ঘোষ মন্ত্রী হওয়াতে চাকদহ বিধানসভা এবং রানাঘাট লোকসভার ভোটের অংক ঠিক কোন পর্যায়ে দাঁড়ায় এখন সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!