এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > লোকসভা নির্বাচন পার হলেও বিধানসভা নিয়ে চাপ বাড়ছে বিজেপির

লোকসভা নির্বাচন পার হলেও বিধানসভা নিয়ে চাপ বাড়ছে বিজেপির

লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি তাদের টার্গেট পূরণ করেছে। কিন্তু 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনই যে তাদের কাছে মূল পাখির চোখ, তা অবশ্য পরোতে পরোতে বুঝিয়ে দিয়েছেন গেরুয়া শিবিরের নেতারা। ইতিমধ্যেই দলের শীর্ষ স্তর থেকে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বের ওপর বিধানসভা নির্বাচনে ভালো ফল করার ব্যাপারে টার্গেট বেঁধে দেওয়া হয়েছে। আর এহেন একটা পরিস্থিতিতে আগামী 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচন নির্ধারিত সময়েই হবে, নাকি তার আগেই তৃণমূল সরকারকে ফেলে দিয়ে বিধানসভা নির্বাচন করাতে বাধ্য করবে গেরুয়া শিবির তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার কলকাতার মহারাষ্ট্র নিবাস হলে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।যেখানে উপস্থিত ছিলেন সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক রামলাল, কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়, রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায় সহ অন্যান্যরা। আর এই বৈঠকেই বিজেপির এক নেতা বলেন, ” লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের 16 টি জেলায় বিজেপি তৃণমূলের থেকে বেশি ভোট পেয়েছে। আর চারটি জেলায় তৃণমূল খুব সামান্য ভোটে এগিয়ে আছে।”

এই পরিস্থিতিতে 2021 সালের আগেই তৃনমূলের সরকারের চলে যাওয়া উচিত, নাকি নির্ধারিত সময়েই বিধানসভা ভোট হবে! তা নিয়ে দলীয় নেতাদের কাছে প্রশ্ন করা হয়। জানা যায়, বৈঠকে উপস্থিত বিভিন্ন জেলার বিজেপি নেতারা 2021 সালের আগেই তৃণমূল সরকারের চলে যাওয়া উচিত বলে দলের কাছে বিভিন্ন রিপোর্ট তুলে দেন। কিন্তু যে সময়েই বিধানসভা নির্বাচন হোক না কেন, এই নির্বাচন যে তাদের পক্ষে অত্যন্ত চ্যালেঞ্জের, তা এই বৈঠকেই বুঝিয়ে দিয়েছেন বিজেপির শীর্ষনেতারা।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক রামলাল বলেন, “লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের মানুষ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দেখে ভোট দিয়েছেন। কিন্তু বিধানসভায় ওই পরিস্থিতি থাকবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের মুখ। তবে রাজ্য বিজেপিতে এই মুহূর্তে তেমন কোনো মাপের নেতা নেই। তাই এই ঘাটতি পূরণ করতে রাজ্যে দলীয় সংগঠনকে আরও মজবুত করতে হবে।”

বস্তুত, রাজ্যে এখনও পর্যন্ত প্রায় 58 হাজার বুথে বিজেপি তাদের সংগঠন তৈরি করেছে। কিন্তু 20 হাজার বুথে এখনও পর্যন্ত সেই সংগঠন তৈরি হয়নি। তাই সেই অসমাপ্ত বুথগুলিতে যাতে তাড়াতাড়ি সংগঠন তৈরি করে নেওয়া যায়, তার জন্যও এদিনের বৈঠকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে লোকসভা নির্বাচনে বাংলা থেকে যে সমস্ত সাংসদরা নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের আচার-আচরণ যাতে ঠিক থাকে এবং তারা যাতে সব সময় সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন, তার জন্যও এদিনের বৈঠকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেন বিজেপির কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

পাশাপাশি ভিনদল থেকে দলে আসা কোনো নেতা এবং কর্মীদের নিয়ে যাতে কোনোরূপ বিতর্ক তৈরি না হয় তার জন্যও দলীয় নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিয়েছে গেরুয়া শিবির। সব মিলিয়ে এবার দলীয় সংগঠনকে মজবুত করে বিধানসভা নির্বাচনে ভালো ফল করার জন্য এগিয়ে যাচ্ছে গেরুয়া শিবির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!