এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বড়সড় পদ পেলেন বিজেপির হেভিওয়েট এই লোকসভার প্রার্থী

বড়সড় পদ পেলেন বিজেপির হেভিওয়েট এই লোকসভার প্রার্থী

লোকসভা নির্বাচনের আগে মতুয়াদের ভোটব্যাংক নিয়ে শাসক দল তৃণমূল বনাম বিরোধী দল বিজেপির মধ্যে তীব্র দড়ি টানাটানি শুরু হয়েছিল। যার ফলে নদিয়া জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্রেই লড়াই জমজমাট হয়ে উঠেছিল। যার মধ্যে অন্যতম ছিল রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্র। প্রথমে এই কেন্দ্রে বিজেপির হয়ে প্রার্থী হয়েছিলেন মুকুটমণি অধিকারী।

তবে শেষ পর্যন্ত তিনি আর ভোটে লড়তে পারেননি। তার জায়গায় যিনি প্রার্থী হয়েছেন তিনি এবারের নির্বাচনে জয়যুক্ত হয়েছেন। আর নির্বাচনে জয়ের পর এবার মতুয়া ভোটকে আরও নিজেদের বাগে আনতে মতুয়া মহাসঙ্ঘকে ঢেলে সাজাতে নতুন কমিটি গঠন করল বিজেপি।

সূত্রের খবর, এই কমিটিরই সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে সেই বিজেপির চিকিৎসক নেতা মুকুটমণি অধিকারীকে। জানা যায়, এই মুকুটমণি অধিকারীর বাবা গোপাল অধিকারী দীর্ঘদিন ধরেই মতুয়া সংগঠনের সদস্য। বর্তমানে তিনি এই সংগঠনের নদিয়া দক্ষিণ জেলা কমিটির সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন।

আর এবার বিজেপি মতুয়া ভোটকে পাখির চোখ করে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে ঘর গোছানোর জন্য রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপির আগের প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারীকে বড় জায়গায় নিয়ে আসল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, রবিবার চাকদহ শিলিন্দা বাজারে আয়োজিত সংগঠনের এক সভায় এই মুকুটমণি অধিকারীকে সম্পাদক করার কথা ঘোষণা করেন বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ তথা মতুয়া মহাসঙ্ঘের সঙ্ঘাধিপতি শান্তনু ঠাকুর। তিনি বলেন, “জেলার যোগ্য নেতাকে গুরুদায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আমি আশা করছি এই দায়িত্ব সে খুব ভালোভাবে পালন করবে। মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষের আন্দোলনকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।”

অন্যদিকে সংগঠনের নতুন দায়িত্বে এসে সেই মুকুটমণি অধিকারী বলেন, “জেলার 62% তপশিলি জাতি ও উপজাতির মধ্যে 45 থেকে 50 শতাংশই মতুয়া। এতদিন বিভিন্ন রাজনৈতিক দল তাদের নিজেদের স্বার্থে এদের ব্যবহার করেছে, কিন্তু তাদের উন্নয়নের কথা ভাবেনি। বিজেপি সেটা ভাবছে, তাই তারা বিজেপির সঙ্গেই রয়েছে।”

অন‌্যদিকে এই প্রসঙ্গে পাল্টা তপশিলী জাতি উপজাতি নদীয়া জেলার সভাপতি তথা কল্যাণীর তৃণমূল বিধায়ক রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বলেন, “তৃণমূল ঠাকুরবাড়ি ও মতুয়াদের উন্নয়নে প্রচুর কাজ করেছে। তাদের মধ্যে আমাদের প্রভাব বিন্দুমাত্র কমেনি। আগামীতেও এর কোনো পরিবর্তন হবে না।”

তবে মতুয়া ভোটকে নিজেদের বাগে আনার জন্য মুকুটমণি অধিকারীকে বিজেপি দায়িত্ব দিলেও এখন মুকুটমণিবাবু ঠিক কতটা সেই দায়িত্ব পালন করতে পারেন, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!