এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > লোকসভা নির্বাচনে এক ঢিলে দুই পাখি – জনসংযোগ ও দলীয় তহবিল তৈরির অভিনব পথে কংগ্রেস

লোকসভা নির্বাচনে এক ঢিলে দুই পাখি – জনসংযোগ ও দলীয় তহবিল তৈরির অভিনব পথে কংগ্রেস

লোকসভা ভোটের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে কেন্দ্র থেকে পদ্ম উপড়ে ফেলার লক্ষ্যে জনসংযোগ এবং দলীয় তহবিল তৈরির অভিনব কৌশল কংগ্রেসের। কুপন মারফত টাকা সংগ্রহ করা নিয়ে আলোচনায় বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সর্বভারতীয় কংগ্রেস কমিটি। তারজন্য দিল্লিতে ডাক পড়েছে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বের। ৫,১০,২০,৫০ টাকার পাশাপাশি ১০০,৫০০,১০০০ টাকার কুপন বিলি করে অর্থ সংগ্রহ করা নিয়ে বিস্তারে আলোচনা করা হবে বৈঠকে এমনটাই জানা গিয়েছে প্রদেশ কংগ্রেস সূত্রের খবর থেকে। এর সঙ্গে জনসংযোগ বাড়ানোর দিকে সম্পূর্ণ নজর রয়েছে কংগ্রেসের। মানুষের দোরগোড়ায় গিয়ে কংগ্রেসের জনস্বার্থমুখী দিক গুলো তুলে কথা ভাবা হয়েছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে কংগ্রেসের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি তুলে ধরার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এবং কর্মসূচিরই একটা অংশ হিসাবে কুপন মারফত আমজনতার কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর জেরে জনসংযোগ বাড়ানোর পাশাপাশি ফান্ডও মজবুত হবে। এক ঢিলে দুই পাখি মারারই মাস্টারপ্ল্যান করেছে এআইসিসি।

দিন কয়েক আগে, দলীয় কোষাগারের ভাঁটা কীভাবে কমানো যাবে তা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বসে সর্বভারতীয় কংগ্রেস কমিটি। সেখানেই কুপন মারফত ১০০,৫০০,১০০০ টাকা সংগ্রহের সিদ্ধান্তের কথা প্রদেশ কংগ্রেসকে জানিয়ে দেয় এআইসিসি। বলা হয়,প্রদেশ কংগ্রেসের সংগ্রিহীত টাকার একটা ভাগ নিজেদের কাছে রেখে বাকি সিংহভাগ টাকাটাই জমা দিতে হবে কেন্দ্রে। তবে বৈঠকে ১০০ টাকার কম অঙ্কের টাকার কুপনের প্রস্তাব দিয়েছিল একাধিক রাজ্য কংগ্রেস নেতৃত্ব। এ বিষয়টিও গুরুত্ব সহকারে আলোচনা করে এআইসিসি। তারপর,প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বদের আবেদনে সাড়া দিয় তাঁরা। তবে ৫,১০,২০,৫০ টাকার কুপন তৈরির যাবতীয় দায়িত্ব প্রদেশ কংগ্রেসের উপর চাপায় কেন্দ্র। তবে ১০০ টাকার কম ও বেশি অঙ্কের কুপন নিয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে ২৬ অক্টোবর বৈঠকে বসতে চলেছেন এআইসিসির সাধারণ সম্পাদক অশোক গেলহট। বৈঠকে হাজির থাকবেন দেশের বিভিন্ন রাজ্যের প্রদেশ কংগ্রেসরা। বর্তমানে কংগ্রেসের তহবিলের ভঙ্গুর দশা দেখেই লোকসভা ভোটের আগে ফান্ড মজবুত করতেই এই কৌশল করেছে জাতীয় কংগ্রেস কমিটি। বৈঠকে বিস্তারে আলোচনা হতে ১০০ টাকার কম অঙ্কের কুপন গুলো থেকে কীভাবে টাকা প্রদেশ কংগ্রেস থেকে কেন্দ্রের তহবিলে আসবে। এই সংক্রান্ত সময় বিষয়েই স্পষ্ট করে দেবে এআইসিসি। এমনটাই জানা গিয়েছে দলীয় সূত্রের খবরে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি পর্বে প্রচার কর্মসূচির পাশাপাশি কোষাগারের দিকেও যে সমান নজর দেওয়া দরকার,সে বিষয়টি মাথায় রেখেই বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে। কেননা,প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের মতো বৃহৎ কর্মসূচিতে জনসংযোগ বাড়ানো হোক বা দফায় দফায় জনসভা করা,কিংবা প্রচার চালানো সবেতেই অর্থ একটা বড় ফেক্টর। দূর্বল ফান্ড নিয়ে এটা করা কখনোই সম্ভব না,জয়ের কথা ভাবা তো অনেক দূরের কথা। তাই শাসক শক্তিকে ময়দানে ধরাশায়ী করতে গেলে আগে দরকার পর্যাপ্ত প্রয়োজনীয় সামগ্রীর যোগান এবং মজবুত সংগঠন। তাই জনসংযোগ গড়ার সঙ্গে কীভাবে সাধারণ মানুষের অর্থ সাহায্যে দলীয় ফান্ড মজবুত করা যায় সে লক্ষ্যেই প্রদেশ কংগ্রেসের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছে কেন্দ্র। বৈঠকে এ সংক্রান্ত কী কী নির্দেশিকা উঠে আসে,দিকেই নজর রয়েছে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!