এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > লোকসভা নির্বাচনকে কালোটাকার প্রভাব মুক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ কমিশনের

লোকসভা নির্বাচনকে কালোটাকার প্রভাব মুক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ কমিশনের

কালো টাকা মুক্ত ভারত গড়ার উদ্যোগ আগেও নিয়েছিল ভারত সরকার। ২০১৬ সালে নোটবন্দির ঘোষণা করে দেশবাসীকে চমকে দিয়েছিলেন মোদী। ফের একবার দেশকে কালো টাকার প্রভাবমুক্ত করতে বড়সড় পদক্ষেপ নিল বিজেপি সরকার। লোকসভা ভোট ঘোষণার পর মোদী সরকারের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ভোটের কাজে যাতে কোনোভাবেই হিসাব বহির্ভূত টাকার ব্যবহার না হয় তার জন্যে আলাদা করে হেল্প লাইন খোলা হয়েছে। আয়কর বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে,এই কাজে সাধারণ মানুষের সহযোগিতা যেমন প্রয়োজন তেমনি তাদের প্রয়োজনেও পাশে দাঁড়াবে আয়কর বিভাগ।

কোলকাতায় আয়কর ভবনে এই অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্তা ডিরেক্টর আশিস ভার্মা বলেন,গোটা রাজ্যে ইতিমধ্যেই নির্বাচনের বিশেষ দায়িত্ব দিয়ে একশোর বেশি অফিসারকে নিয়ে দল গঠন করা হয়েছে। রাজ্যের ৪২ টি লোকসভা কেন্দ্রের উপরে বিশেষ নজর রাখবে এই দল।

নজরদারি চালানোর পাশাপাশি বিভিন্ন প্রান্তে তথ্য জোগাড়ে অনেক ইনফর্মারও নিয়োগ করা হয়েছে বলে জানান ভার্মা। পাশাপাশি সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন করে আয়কর দফতর জানিয়েছেন,কালো টাকার লেনদেনের খবর পেলেই তথ্য দিয়ে সাহায্য করেন। এরজন্যে কন্ট্রোল রুমও তৈটি করা হয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এখানে ভোটের কালো টাকার ব্যবহার রুখতে ২৪ ঘন্টাই কর্তব্যরত থাকবেন আধিকারিকরা। এর জন্যে চালু করা হয়েছে তিনটি ফোন নম্বর। বিশেষ টোল ফ্রি নম্বর ১৮০০৩৪৫৫৫৪৪ ছাড়াও, ৬২৮৯৭০২৯২২ এবং ৬২৮৯৭০৪১৪৬ মোবাইল নম্বরেও ফোন করে তথ্য জানাতে পারবেন যে কোনও মানুষ। তথ্যদানকারী মানুষের সুরক্ষার স্বার্থে তাঁদের তথ্য গোপন রাখার আশ্বাসও দিয়েছেন আয়কর দপ্তর।

এই পদক্ষেপ নেওয়ার পর ইতিমধ্যেই রাজ্যের বেশ কিছু জায়গা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে নগদ কালো টাকা। খাস কোলকাতা থেকেই প্রায় তিন কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভার্মা। নির্বাচন চলাকালীন যে কোনো ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট থেকে দশ লক্ষ বা তার বেশি অঙ্কের টাকা জমা বা তোলা হলে সেই বিষয়গুলোর উপরেও নজরদারি করবে আয়কর বিভাগ। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই সমস্ত রাষ্ট্রায়ত্ত ও বেসরকারি ব্যাঙ্কের কর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন নির্বাচন কমিশন এবং আয়কর বিভাগ ।

ব্যাঙ্ককেও নগদ লেনদেন খবর আয়কর বিভাগকে জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবং প্রয়োজনে হিসাব না থাকা টাকা আয়কর বিভাগ বাজেয়াপ্ত করার হুঁসিয়ারীও দিয়েছে। এছাড়া কোলকাতায় বিশেষত বড়বাজারের মতো ব্যবসায়িক ঘাঁটি যেখানে ব্যবসা মূলত নগদে চলে সেই জায়গাগুলোর উপরও বিশেষ নজরদারি চালানো হচ্ছে। এই কাজের জন্য আমজনতার পূর্ণ সহযোগিতা দাবী করেছে আয়কর বিভাগ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!