এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > লোকসভা ভোটকে পাখির চোখ করে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনায় নয়া ঘোষণা

লোকসভা ভোটকে পাখির চোখ করে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনায় নয়া ঘোষণা

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে সাফল্য পেতে মরিয়া গেরুয়া শিবির। সেই লক্ষ্যে রাজ্যবাসীর সঙ্গে মানুষের জনসংযোগ বাড়াতে নতুন পদক্ষেপ করলো কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর গ্রাম স্বরাজ অভিযানের অন্তর্গত উজ্জ্বলা যোজনায় চলতি বছর দেশের স্বাধীনতা দিবসের আগেই পশ্চিমবঙ্গের ৭,৩৬৪টি গ্রামের পাঁচ লক্ষ পরিবারকে কোনওরকম অগ্রিম ছাড়াই এলপিজি গ্যাসের সংযোগ দেওয়া হবে। এদিন কেন্দ্র সরকারের এই উন্নয়ন প্রকল্প সম্পর্কে রাজ্যবাসীকে জানালেন ইন্ডিয়ান অয়েলের এলপিজি’র পশ্চিমবঙ্গের জেনারেল ম্যানেজার অভিজিৎ দে। এছাড়াও দেশবাসীর গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের জন্য কেন্দ্র সরকার নিয়ে এল নতুন সুবিধা। এই প্রসঙ্গে অভিজিৎবাবু জানান, কোনও গ্রাহকের ১৪ কেজির বদলে পাঁচ কেজি গ্যাস দরকার হলে, সেই পরিমাণ টাকা দিয়ে পাঁচ কেজির সিলিন্ডার নেওয়ার মতো ব্যবস্থা চালু হয়েছে। এদিন কল্যাণী প্ল্যান্টে এক সাংবাদিক বৈঠকে ইন্ডিয়ান অয়েলের এলপিজি’র পশ্চিমবঙ্গের জেনারেল ম্যানেজার অভিজিৎ দে ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট সংস্থার এই রাজ্যের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার আরএস ভট্টাচার্য, কল্যাণীর মুখ্য প্ল্যান্ট ম্যানেজার এস ডাকুয়া প্রমুখ। তাঁরা সংস্থার আগামী পরিকল্পনা বিষয়ে জনগনকে সূচিত করেন। জানান, শীঘ্রই খড়্গপুরে নতুন এলপিজি’র বটলিং প্ল্যান্ট স্থাপন হবে। কল্যাণী প্ল্যান্টে এখন প্রতিদিন প্রায় ৬০ হাজার সিলিন্ডারে গ্যাস ভর্তি করা হয়। ২০২০ সালে এই সংখ্যা লক্ষে পৌঁছে যাবে। এখন বজবজ প্ল্যান্টে প্রতিদিন ৩০ হাজার সিলিন্ডারে গ্যাস ভরা হয়। আগামী দিনে তা ৬০ হাজার করার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। বর্তমানে ট্যাঙ্কারের মাধ্যমে গ্যাস আনা হয়। আগামী দিনে কল্যাণী, বজবজ-সহ এ রাজ্যের সব প্ল্যান্টেই পাইপলাইনের মাধ্যমে গ্যাস আনা হবে। পারাদীপ ও হলদিয়া বন্দরের সঙ্গে কল্যাণী ও দুর্গাপুর প্ল্যান্টকে পাইপলাইনে যুক্ত করারও পরিকল্পনা রয়েছে। সংস্থার কর্তা ব্যক্তিরা জানালেন গ্রাহকের নিরাপত্তাই তাঁদের প্রধান লক্ষ্য। গ্যাসের ডেলিভারি কর্মীরা যাতে উপযুক্ত প্রশিক্ষণ নিয়ে বাড়ি বাড়ি গ্যাস পৌঁছে দেন, সে বিষয়ে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানালেন তাঁরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!