এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > পুরুলিয়ায় মৃত বিজেপি কর্মীর পরিবারকে বুক দিয়ে আগলে রেখেছেন লকেট-সায়ন্তন

পুরুলিয়ায় মৃত বিজেপি কর্মীর পরিবারকে বুক দিয়ে আগলে রেখেছেন লকেট-সায়ন্তন

পঞ্চায়েত নির্বাচনে পুরুলিয়া জেলায় বিজেপির দুর্দান্ত ফলাফলের আনন্দের রেশ মেলাবার আগেই নেমে আসে শোকের ছায়া। মাত্র তিনদিনের মধ্যে দুই বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহকে ঘিরে বুক ভাঙা কান্না ঘিরে ধরে গেরুয়া পরিবাবারকে। প্রথমে ১৮ বছরের যুবক ত্রিলোচন মাহাতোর ঝুলন্ত মৃতদেহ পাওয়া যায় আর তারপরেই ৩২ বছরের দলিত নেতা দুলাল কুমারের ঝুলন্ত মৃতদেহ পাওয়া যায়। স্থানীয়দের বা মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের দাবি দুটি ঘটনায় আসলে পরিকল্পিত হত্যা এবং দুটি ক্ষেত্রেই আঙ্গুল ওঠে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে। যদিও পুলিশ প্রাথমিক তদন্তের পর জানিয়েছে এগুলি আসলে আত্মহত্যা, কিন্তু কিছুতেই তা মানতে রাজি নয় গেরুয়া শিবির। আর তাই দুলালবাবুর মৃত্যুর পর পুরুলিয়ায় পৌঁছে যান দুই দাপুটে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু ও লকেট চট্টোপাধ্যায়।

আর সেদিন থেকেই পুরুলিয়ায় ঘাঁটি গেড়ে বসে আছেন পুরুলিয়ায় রাজ্য বিজেপির এই দুই হেভিওয়েট নেতা-নেত্রী। একদিকে এই মৃত্যুর ঘটনায় হত্যার তদন্তের দাবিতে ডিএম ও এসপি অফিসের সামনে ধর্ণা, অন্যদিকে মৃত ও শোক-সন্তপ্ত পরিবারকে এই কঠিন সময়ে বুক দিয়ে আগলে রাখা – দুইই নিয়মিত করে যাচ্ছেন গেরুয়া শিবিরের এই দুই তরুণ তুর্কি। স্বাভাবিকভাবেই দুই সন্তানকে নিয়ে অসম্ভব ভেঙে পড়েছেন মৃত দুলাল কুমারের স্ত্রী, কিন্তু তাঁকে একদম পাশের বাড়ির দিদির মত বুক দিয়ে আগলে রাখার পাশাপাশি, তাঁকে সন্তানদের মুখের দিকে তাকিয়ে মানসিকভাবে চাঙ্গা করে রাখার দায়িত্ত্ব প্রায় একার হাতেই সামলাচ্ছেন বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। স্বামী-পুত্রের মৃত্যুশোক এত সহজে ভোলার নয়, তা সত্ত্বেও লকেট-সায়ন্তনের নেতৃত্ত্বে যেভাবে পুরো গেরুয়া পরিবার পাশে দাঁড়িয়েছেন, তাতেই ভরসা রেখে সন্তানদের মুখের দিকে তাকিয়ে চোখের জল মুছে এগিয়ে যেতে চলেছেন মৃত দুলাল কুমারের পরিবার।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!