এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > নারী ধর্ষণ নিয়ে রাজ্য সরকারকে তীব্র আক্রমন লকেট চট্টোপাধ্যায়ের

নারী ধর্ষণ নিয়ে রাজ্য সরকারকে তীব্র আক্রমন লকেট চট্টোপাধ্যায়ের

দিন কয়েক আগে বোলপুরের রজতপুরে এক তরুণীকে ব্ল্যাকমেল করে ধর্ষণ এর অভিয়োগ ওঠে তাঁদেরই বাড়িতে কাজ করতে আসা এক রংমিস্ত্রির বিরুদ্ধে। অপমানে গায়ে আগুন নিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই তরুণী, পরে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্য হয় তাঁর। ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বোলপুরে নির্যাতিতার পরিবারের সাথে কথা বলেন জাতীয় মহিলা কমিশনের সদস্যা সুষমা সাহু ও বিজেপি মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। সুষমাদেবী এদিন প্রকাশ্যে আইসি কে ধমক দিয়ে বলেন, উর্দি খুলে ফেলুন, আপনি এর যোগ্য নন। পরে পুলিশ সুপারকে ফোন করে জানতে চান, তরুণী আত্মঘাতী হওয়ার পর কেন চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়নি? কেন চার ঘন্টা হাসপাতালে ফেলে রাখা হোল? কার গাফিলতি? কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে?
পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপি মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় জানান, এখানে চিকিৎসকরা ঘটনার পর পুলিশকে জানান। আর রাজ্য সরকার বলছে – আমরা ঘর করে দিচ্ছি, শৌচালয় বানিয়ে দিচ্ছি। মোদী সরকারের প্রকল্পেই এসব করা হচ্ছে, রাজ্য সরকার কী দিচ্ছে । প্রসঙ্গত, রজতপুরের বাসিন্দা ওই তরুণীর বাড়িতে রঙের কাজ চলার সময় লুকিয়ে তরুণীর স্নানের ছবি তোলে শেখ হাফিজুল নামে এক রংমিস্ত্রি এবং ওই ছবি ইন্টারনেটে ফাঁস করে দেবে বলে হুমকি দিয়ে ওই তরুণীকে বার বার ধর্ষণ করে। সেই অপমানে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী হন তরুণী।

Top
error: Content is protected !!