এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > এগিয়ে আসছে লোকসভা নির্বাচন, দলের গোষ্ঠী কোন্দল সামলাতে কড়া হুঁশিয়ারি হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদের

এগিয়ে আসছে লোকসভা নির্বাচন, দলের গোষ্ঠী কোন্দল সামলাতে কড়া হুঁশিয়ারি হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদের

গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে বিগত ২০১৬ র বিধানসভায় দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার একাধিক আসনে হারতে হয়েছিল শাসকদলকে। কিন্তু সামনেই লোকসভা নির্বাচন। তাই এখন থেকেই দলের নেতা-কর্মীদের সমবেত হয়ে কাজ করবার জন্য নির্দেশ দিলেন বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ অর্পিতা ঘোষ।

সূত্রের খবর, গত শনিবার বিকেলে বালুরঘাট টাউন তৃণমূলের সভাপতি সুভাষ চাকির ডাকে বালুরঘাটের “গুলমোহর” নামক একটি বেসরকারি সভাগৃহে আগামী ১৯ শে জানুয়ারি কলকাতায় ব্রিগেডের সভার প্রস্তুতি নিয়ে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ অর্পিতা ঘোষ, বালুরঘাটের প্রাক্তন বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রাক্তন পূর্তমন্ত্রী শঙ্কর চক্রবর্তী, কুমারগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক তোরাফ হোসেন মন্ডল, গঙ্গারামপুরের বিধায়ক গৌতম দাস সহ অন্যান্যরা।

উল্লেখ্য, এদিনের এই সভায় প্রায় প্রত্যেকেই দলীয় নেতাকর্মীদের আসন্ন লোকসভা ও পরবর্তীতে বালুরঘাট পৌরসভা নির্বাচনের আগে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে বালুরঘাট তথা দক্ষিন দিনাজপুর জেলায় শাসকদলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ নিয়ে দলীয় কর্মীদের অনেকেই সাংসদের তোপের মুখে পড়েন।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যাচ্ছে এদিন নিজের বক্তব্যে সাংসদ অর্পিতা ঘোষ বলেন, “ভেতরে গন্ডগোল করুন। কিন্তু বাইরে সবাই ভাইয়ের মতো থাকুন”। অন্যদিকে বালুরঘাট শহর কমিটির সাথে আলোচনা না করে যেভাবে বিভিন্ন জায়গায় মিটিং হচ্ছে তা বরদাস্ত করা হবে না বলেও এদিন সকলকে জানিয়ে দেন এই তৃণমূল সাংসদ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আরও জানা যায়, তিনি বলেন, “দল একটি চেনের মতো। ওয়ার্ডে যাঁরা কাজ করছেন তাঁদের সঙ্গে ব্লকের সম্পর্ক রাখতে হবে”। অন্যদিকে এদিনের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্তমানে ম্যাকেনটোর্স বার্ন কোম্পানির চেয়ারম্যান শংকর চক্রবর্তী বলেন, “অনেকদিন পরে শহর কমিটির এমন মিটিং ডাকা হয়েছে। দলের মধ্যে যে বিভাজন রয়েছে তা আমাদেরকেই ঠিক করতে হবে”।

অন্যদিকে এদিনের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বালুরঘাট শহর তৃণমূলের সভাপতি সুভাষ চাকি বলেন, “শহরের যা সমস্যা রয়েছে তা ওয়ার্ডের নেতাদের বলতে হবে। যদি দলের মধ্যে কারও কোন সমস্যা থাকে, কারও কোন অভিমান থাকে তাহলে তা বলুন, আমরা তার সমাধান করব”।

সূত্রের খবর, এদিকে এদিনের বালুরঘাটের এই দলীয় সভায় বালুরঘাট পৌরসভার একাধিক বিদায়ী কাউন্সিলরদের অনুপস্থিতি নিয়েও সরব হয়েছেন সাংসদ অর্পিতা ঘোষ। রাজনৈতিক মহলের মতে, বিগত বিধানসভায় একদা দক্ষিণপন্থী জেলা হিসেবেই পরিচিত এই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে হারের মুখ দেখতে হয়েছে শাসকদলকে।

দলীয় কোন্দলের জেরে একদিকে যেমন হেরে যেতে হয়েছে রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শংকর চক্রবর্তীকে, ঠিক তেমনই নিজের বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জিততে পারেননি বর্তমান দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি বিপ্লব মিত্রও। তাছাড়া, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে আর যেন তার পুনরাবৃত্তি না হয়, সেই কারণেই এদিন বালুরঘাটে ব্রিগেড সমাবেশের প্রচার সভার মধ্যে দিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিলেন তৃনমূলের অর্পিতা ঘোষ-শঙ্কর চক্রবর্তীরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!