এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা মালদায় বামেদের ‘শেষ ভরসা’ কেড়ে নেওয়ার পর দ্রুত কাজ শুরুর পথে তৃণমূল

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা মালদায় বামেদের ‘শেষ ভরসা’ কেড়ে নেওয়ার পর দ্রুত কাজ শুরুর পথে তৃণমূল

একেই বামেদের অস্তিত্ব তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে,তার উপর লোকসভা ভোটের আগে ঘুরে দাঁড়ানোর শেষ ভরসাটুকুও বামেদের থেকে কেড়ে নিল শাসকদল। সম্প্রতি মালদা জেলায় সমবায় ব্যাঙ্কের ডিরেক্টর বোর্ডের ১২ টি পদের বাছাই কর্মসূচি ছিল। তাতে তৃণমূলের দাপটে বামেরা মনোনয়ন জমা করতে পারছিল না বলেই অভিযোগ জানিয়েছিলো সিপিএমের তরফের প্রার্থীরা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অনেক ঝঞ্ঝাট পেরিয়ে  বামেরা মোটে ৫ টি আসনে মনোনয়ন জমা করতে পেরেছে,সেখানে তৃণমূলের তরফ থেকে জমা পড়েছে ১১ টি মনোনয়ন। আর একটি মহিলা সমবায়ের জন্য সংরক্ষিত আসনে কোনো পক্ষ থেকেই মনোনয়ন জমা পড়েনি। তবে সবথেকে অবাক হওয়ার মতো বিষয় হল, কেন্দ্রের অাওতায় থাকা সমবায়গুলোর নির্বাচনে বামেদের সঙ্গে কংগ্রেস জোট বাঁধলেও ডিরেক্টর বোর্ডের নির্বাচনে তৃনমূলের প্রতাপের সামনে কার্যত তাঁরা নীরব ভূমিকাই পালন করল। এদিকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষদিন চাপের মুখে পড়ে বামেরা তাঁদের মনোনয়ন তুলে নিলেই যুদ্ধ না করেই জিতে যায় শাসকদল।

এদিন সাধারণ সভার মাধ্যমেই মালদাহ সেন্ট্রাল কো অপারেটিভ ব্যাঙ্কের জয়ী ১১ জন ডিরেক্টরদের শংসাপত্র দেওয়া হল। মালদহের সামসি কলেজে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন বোর্ডের স্পেশাল অফিসার তথা জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য। দীর্ঘদিন বামেদের আওতায় থাকা সমবায় ব্যাঙ্কের ডিরেক্টরপদগুলোকেও কব্জা করে নিল শাসকদল। এদিনের অনুষ্ঠান সেই পালবদল পর্ব উদযাপন করতেই আয়োজন করা হয়েছিলো।

এদিনের সাধারণ সভায়, কৃষকদের ঋণ যাতে সঠিক পদ্ধতিতে কাজে লাগানো যায় এবং তা সময়মতো ফিরিয়েও দেওয়া হয় এ ব্যাপারে নবনির্বাচিত ডিরেক্টরদের সচেতনও করে দিলেন সভার জেলা শাসক। ওদিকে ডিরেক্টর বোর্ডের অন্যতম নির্বাচিত সদস্য অম্লান ভাদুড়ী জানান যে, আনুষ্ঠানিকভাবে ডিরেক্টর পদ তৃণমূলের দখলে আসায় বামেদের কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে উপড়ে ফেলা সম্ভব হল। এবার প্রকৃতপক্ষে সমবায় ব্যাঙ্কগুলো কীভাবে কৃষকদের বন্ধু হতে পারে সে ব্যাপার নিয়ে সঠিক পদক্ষেপ অবিলম্বে নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

খুব জলদিই চেয়ারম্যান নিয়োগ করে জেলায় প্রথম আবাম কেন্দ্রীয় সমবায় বোর্ড কাজ শুরু করবে বলেও আশ্বাস দেন তিনি। এ ব্যাপারে তিনি জেলাশাসককে ধন্যবাদ দিতেও ভোলেন না। আসলে তাঁর জন্যেই নির্বাচন সম্ভব হয়েছে বলেই মতামত নব নির্বাচিত এই বোর্ড অফ ডিরেক্টরের। এদিকে ব্যাঙ্কের সূত্র থেকে জানা গেছে যে, স্পেশাল অফিসার অবিলম্বেই পরিচালন পর্ষদের হাত ক্ষমতা তুলে দেবেন। এরসঙ্গে বোর্ড গঠন হয়ে গেছে জানিয়ে রাজ্য সরকারের কাছে সরকারি প্রতিনিধি পাঠাতে হবে বলেও আবেদন করতে হবে। তবে তৃণমূলের অন্দরের খবর বলছে, চেয়ারম্যান পদের জন্যে ইতিমধ্যেই জেলা কার্যকারী সভাপতি সুমালা আগরওয়ালকে বেছে রাখা হয়েছে দলের তরফ থেকে। এটা যদি কার্যকারী হয়,তবে তিনিই মালদহ কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাঙ্কের প্রথম মহিলা তথা অবাম চেয়ারম্যান হবেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!