এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবরকে সত্যি করে মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূল ছেড়ে দুই হেভিওয়েট বিজেপিতে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবরকে সত্যি করে মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূল ছেড়ে দুই হেভিওয়েট বিজেপিতে

একদা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের সেকেন্ড-ইন-কম্যান্ড মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেই ঘোষণা করেছিলেন – ঘাসফুল শিবিরে নাকি থাকা যায় না, শ্বাস-প্রশ্বাসের কষ্ট হয়! তাই, তিনি দল ছেড়েছেন – তবে, দলে থাকলেও এই শ্বাস-প্রশ্বাসের কষ্টে ভুগতে থাকা অনেকেই নাকি আগামী দিনে দল ছাড়বেন। তার মধ্যে আছেন অনেক হেভিওয়েটও – আর তৃণমূল কংগ্রেসে সেই ভাঙন শুরু হলে, দলটা নাকি উইয়ের ঢিপির মত ঝুরঝুর করে ভেঙে পড়বে।

স্বাভাবিকভাবেই, তাঁর কথায় সেদিন তুমুল হেসেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের অগণিত কর্মী-সমর্থক-অনুগামীরা। একইসঙ্গে দাবি করেছিলেন, মুকুল রায়কে নাকি কাঁচরাপাড়ার রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে জাতীয় রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্নেহচ্ছায়া থেকে বেরিয়ে মুকুলবাবু রাজনীতির ময়দানে কিছুই করতে পারবেন না – কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, তৃণমূল কংগ্রেসে আস্তে আস্তে ততই ফাটল ধরাতে শুরু করেছেন মুকুল রায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কিছুদিন আগেই তাঁর হাত ধরে দিল্লিতে বিজেপিতে যোগদান করেন তৃণমূল কংগ্রেসের বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। আর তারপরেই যিনি রাজ্য-রাজনীতিতে মুখ্যমন্ত্রীর ‘কন্যা’ নামে পরিচিতি ছিলেন, সেই ভারতী ঘোষও মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন। আর আজ আবার দিল্লিতে হয়ে গেল মুকুল-ম্যাজিক বলে দাবি মুকুল রায়ের অনুগামীদের! একদা তৃণমূল কংগ্রেসের এক হেভিওয়েট যুবনেতা শঙ্কুদেব পান্ডাঅভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায় আজ দিল্লিতে মুকুল রায় ও কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র হাত ধরে গেরুয়া শিবিরে পদার্পন করলেন। শঙ্কুদেব পণ্ডা তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত ছিলেন। এতটাই ঘনিষ্ট ছিলেন যে তিনি তৃণমূল নেত্রীকে ‘দিদি’ নয় ডাকতেন ‘পিসি’ বলে।

অন্যদিকে, বিশ্বজিৎবাবুও তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত, এমনকি ২০১৪ সালে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিটে দিল্লি থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেন। আজ দুপুর ২ টোয় দিল্লিতে বিজেপি সদর দফতরে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করলেন শঙ্কুদেব পণ্ডা ও বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলে জানা গেছে। প্রসঙ্গত, একটি স্টিং অপারেশনে তাঁর নাম জড়িয়ে যাওয়ার পর থেকেই দলের সঙ্গে তাঁর দূরত্ব বাড়তে থাকে শঙ্কুদেব পণ্ডার। তবে, ইদানিং আবার শাসকদলে প্রবলভাবে তাঁর নাম ভেসে উঠতে থাকে, এমনকি শাসকদলের যে শাখা সংগঠনের শীর্ষে তিনি একদা ছিলেন, সেখানে আবার তাঁকে দায়িত্ব দেওয়ার কথাও শোনা যাচ্ছিল। যদিও, শেষপর্যন্ত দায়িত্ব পান অন্য একজন – কিন্তু, এই জল্পনায় শাসকদলে তাঁর যে আবার গুরুত্ব বাড়ছিল তা প্রমাণিত বলেই ধারণা রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। সবমিলিয়ে, দুই হেভিওয়েটের যোগদান ঘিরে খুশির হাওয়া গেরুয়া শিবিরে। প্রসঙ্গত, এই যোগদানের খবর সর্বপ্রথম প্রিয় বন্ধু মিডিয়াই প্রকাশ্যে এনেছিল। আর সেই খবরকে সত্যি করে বিজেপিতে যোগ দিলেন শঙ্কুদেব পান্ডা এবং বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

প্রিয় ছাত্রনেতা শঙ্কুদেব পণ্ডাকে উত্তরীয় পরিয়ে গেরুয়া শিবিরে স্বাগত জানাচ্ছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।
বিজেপিতে যোগদানের পর কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র সঙ্গে বর্ষীয়ান অভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়।
আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!