এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকের আগেই পদ ছাড়লেন ‘অভিষেক ঘনিষ্ঠ’হেভিওয়েট নেতা, জোর জল্পনা রাজ্যে

মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকের আগেই পদ ছাড়লেন ‘অভিষেক ঘনিষ্ঠ’হেভিওয়েট নেতা, জোর জল্পনা রাজ্যে

২১ সে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন যে তিনি আগামী ২৬ সে জুলাই মধ্যমগ্রামে প্রশাসনিক সভা করবেন। আর সেই সভার প্রস্তুতি ঘিরে এই মুহূর্তে জেলা তৃণমূলের ব্যস্ততা তুঙ্গে। আর তার মাঝেই ছন্দপতন হলো মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক সভার মুখেই পদত্যাগ করলেন জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ বুরহানুল মুকাদ্দিম ওরফে লিটন ।

এদিকে মধ্যমগ্রামে যে প্রশাসনিক সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই সভায় জেলার সমস্ত প্রশাসনিক আধিকারিকদের পাশাপাশি জেলা পারিষদের সভাধিপতি, সহকারী সভাধিপতি ও কর্মাধ্যক্ষদের থাকার কথা। আর সেই সভা হবে আগেই এইভাবে জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষর পদত্যাগ ঘিরে উঠছে প্রশ্ন।

কেননা গত বিধানসভা নির্বাচনে উত্তর চব্বিশ পরগনার ২৯টি বিধানসভা আসন নিজেদের দখলে রাখলেও লোকসভা নির্বাচনের ফল অনেক হিসাব উলোট পালট করে দিয়েছে। ব্যারাকপুর ও বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্র হাতাছাড়া হয়েছে আর তার হলো উত্তর চব্বিশ পরগনার বেশ কয়েকটি বিধানসভা আসনে বিজেপির লিড পাওয়া ৷ পাশাপাশি, ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের বেশিরভাগ পৌরসভায় পিছিয়ে রয়েছে শাসক দল ৷ আর এই সব নিয়েই আর জেলা সভাপতি ও পর্যবেক্ষকদের উপর আস্থা না রেখে দলের সংগঠেনের রাশ নিজের হাতে নিয়েই এই বৈঠক করতে চলেছেন নেত্রী। আর তার মাঝেই এই ধাক্কা।

জানা যাচ্ছে, পদত্যাগ করা এই জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ বুরহানুল মুকাদ্দিম ওরফে লিটন জেলা পরিষদের ৫১ নম্বর আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি বাদুড়িয়ার মহেশপুর হাইস্কুলের ইংরেজির শিক্ষক এছাড়াও সম্প্রতি প্রধান শিক্ষকের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। পাশাপাশি তাঁর আরো একটি তা হলো তিনি ভাইপো সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ। ফলে তাঁর এহেন পদত্যাগ ঘিরে উঠেছে প্রশ্ন।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এই নিয়ে দলের একাংশের দাবি লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূলে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের শিবিরের সঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শিবিরের ঠান্ডা লড়াই চলছে। আর বাদুড়িয়ায় দলের লাগাম কার হাতে থাকবে তা নিয়ে নাকি লিটনের সঙ্গে দড়ি টানাটানি চলছে বাদুড়িয়ার পুরপ্রধান তুষার সিংহের। এদিকে তুষার সিংহ আবার জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত। ফলে দুপক্ষের মধ্যে বেশ রেষারেষি লেগেই থাকতো। প্রায়ই তুষার বনাম লিটনের বিরোধ প্রকাশ্যে এসেছে। দলের জেলা সভাপতির অনুগামী হওয়ায় তুষারই বরাবর প্রাধান্য পেয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছিল লিটনের অনুগামীদের তরফ থেকে। আর সেই কথা নাকি অনেকবার শীর্ষ নেতৃর্ত্বকে জানালেও কিছু কাজ হয়নি যার জেরেই এইদিন পদত্যাগ করলে তিনি।

এই নিয়ে লিটনবাবু জানান যে, “আমি প্রধান শিক্ষকের পরীক্ষায় পাশ করেছি । তাই স্কুলের কথা ভেবে পদত্যাগ করেছি । এটা সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত বিষয়।দলে কারও সঙ্গে আমার কোনও ভুল বোঝাবুঝি নেই ।” এদিকে জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতি কৃষ্ণগোপাল বন্দ্যোপাধ্যায়ও বলেছেন, “লিটন প্রধান শিক্ষক হয়ে যাচ্ছে । স্কুলের চাকরিতেইও ফিরতে চাইছে । তাই পদত্যাগ করেছে । দলে কারও সঙ্গে ওর বিরোধ নেই।”

কিন্তু সে যাই হোক এই নিয়ে রাজনৈতিকমহল অবশ্য অন্য গন্ধ পাচ্ছেন। আর তা হলো বিজেপি যোগ। রাজনৈতিকমহলের মতে, হতেও পারে গোটা ২৪ পরগনায় শুধু নয় বাংলা জুড়ে একটা গেরুয়া হওয়া বইছে আর তা ক্রমশ গ্রাস করছে তৃণমূলকেও। ফলে সেই ঝড়ের অভ্যাস করেই হয়তো পদ ছাড়লেন হেভিওয়েট নেতা। আর হতেও পারে পরবর্তী কালে তিনি বিজেপিতে যেতেও পারেন। তবে এই নিয়ে লিটনবাবু কিছু বলেন নি। আর এদিকে এই নিয়ে বিজেপির তরফ থেকেও কোনো প্রতিক্রিয়াও পাওয়া যায়নি। যা হবে তার জন্য এখন অপেক্ষা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!