এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজনৈতিক নেতাদের পাশাপাশি পুলিশও আর সুরক্ষিত নয় রাজ্যে! কর্তব্যরত পুলিশের মাথায় গুলি করে হত্যা নিয়ে রহস্য!

রাজনৈতিক নেতাদের পাশাপাশি পুলিশও আর সুরক্ষিত নয় রাজ্যে! কর্তব্যরত পুলিশের মাথায় গুলি করে হত্যা নিয়ে রহস্য!

লোকসভা ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশের দিন কয়েকআগেই এবার এক পুলিশ কর্মচারীর হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল। চোপড়া থানার কর্তব্যরত এক কনস্টেবলের গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হল এদিন। ভোটের আগে এতোদিন রাজনৈতিক নেতাদের খুনের খবর হামেশাই শোনা যেত। তবে এবারের লোকসভা ভোট পুলিশ কর্মচারীদের সুরক্ষাকে প্রশ্নের মুখে দাঁড় করাল।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,নিহত ওই কনস্টেবলের নাম সাব্বির আলম (৪৫)। চাকুলিয়া থানার গণ্ডালের বাসিন্দা এই কনস্টেবল দিন দুয়েক আগে গভীর রাতে চোপড়া থানার ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে নাইট পেট্রোল ভ্যানে অন্য কর্মীদের সঙ্গে ডিউটিতে ছিলেন। কালাগাছে ভ্যানটি দাঁড়িয়েছিল।

আর ওই কনস্টেবল রাস্তার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এই সময়ই হঠাৎ করে দুষ্কৃতিরা তাঁকে গুলি করে। অন্যান্য পুলিশ কর্মচারীরা কিছু বোঝার আগেই দুষ্কৃতিরা চম্পট দেয়। আর এদিকে মাথার ডানদিকে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই কনস্টেবলের।

তবে নিহত কনস্টেবলের পরিবারের দাবী,এই হত্যাকাণ্ডের বেশ কিছু তথ্য গোপন করছে পুলিশ। মৃত কনস্টেবলের দাদা আব্দুল রোফ তাঁর ভাইয়ের হত্যাকাণ্ডের পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবী করে বললেন,’আমরা পুলিসের কাছে ময়নাতদন্তের ভিডিও রেকর্ডিং করার দাবি জানিয়েছি।’

অন্যদিকে মৃতের ভাই তফিক আনওয়ার বলেন,’গভীর রাতে পুলিস ফোন করে আমাদের বলে দুর্ঘটনা হয়েছে। আমরা হাসপাতালে গিয়ে দেখি দাদা গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মারা গিয়েছে। কে গুলি করেছে তা পুলিস আমাদের পরিষ্কার করে বলছে না।’ নিহত কনস্টেবলের পরিবার এই হত্যাকাণ্ডের জন্যে পুলিশের উপর তথ্যগোপন করার অভিযোগ করলেও এ ব্যাপারে এখনই কিছু বলতে চাইছে না তাঁরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

উল্লেখ্য,এদিন মৃতদেহকে ময়নাতদন্তের জন্যে ইসলামপুর মহাকুমা হাসপাতালে আনা হয়। পরে সেটিকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়। ইসলামপুর হাসপাতালের সুপার নারায়ন মিদ্যা বলেন,’গুলি মাথায় রয়েছে। আমাদের হাসপাতালে সিটি স্ক্যান, ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞ নেই। তাই মেডিক্যালে মৃতদেহ পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকেই ময়নাতদন্ত করা হবে।’

এদিন দুপুরে পঞ্চায়েত দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম রব্বারি হাসপাতালে যান। মৃতের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তাদের সমবেদনা জানান। পরে রব্বারি সাহেব জানান,’ওই কনস্টেবল অনডিউটিতে ছিলেন। রাত ২টো নাগাদ গুলি লেগে তাঁর মৃত্যু হয়। আমি পুলিস সুপারকে দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি।’

তবে এব্যাপারে জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এসএমএস করা হলেও তিনি কোনো জবাব দেননি। এর জেরে এই হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে রহস্য আরো বেশি করে দানা পাকাতে শুরু করেছে। জেলা সূত্রের খবর থেকে আরো জানা গিয়েছে, যে স্থালে ঘটনাটি ঘটেছে সেখানে বালি মাফিয়াদের দাপট দিন দিন বাড়ছে। প্রতি রাতেই অবৈধভাবে ওই রুট দিয়ে বালির ট্রাক যাতায়াত করে। বালি মাফিয়ারাও গুলি চালাতে পারে বলে মনে করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!