এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে লক্ষাধিক টাকা তোলার অভিযোগে গ্রেপ্তার হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার আইনজীবী

মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে লক্ষাধিক টাকা তোলার অভিযোগে গ্রেপ্তার হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার আইনজীবী

এবার মোটা টাকা না দিলে মিথ্যে মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার অভিযোগে সিবিআইয়ের হাতে ধরা পড়লেন নার্কোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো অফিসার এবং তৃনমূল বিধায়ক ইকবাল আহমেদের ‘নারদ মামলার’ আইনজীবী দানিশ হক। কিন্তু ঠিক কী অভিযোগ রয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের এই আইনজীবীর বিরুদ্ধে?

সূত্রের খবর, বেশ কিছুদিন আগেই সিবিআইয়ের দুর্নীতি দমনশাখায় একটি অভিযোগ করেন ব্যাবসায়ী প্রতাপ আদিত্য। তিনি সিবিআইকে জানান যে, টাকা না দিলে মাদকের মিথ্যে মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দিচ্ছেন এই দানিশ হক। আর এরপরই গত সোমবার প্রতাপ আদিত্য নামে ওই ব্যাবসায়ী ২ লক্ষ টাকার মধ্যে প্রথম কিস্তির পঞ্চাশ হাজার টাকা তাঁর পার্ক সার্কাসের অফিসে দিতে গেলে সেখান থেকে এই দানিশ হককে গ্রেপ্তার করে সিবিআই।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে শুধু দানিশ হক নয় এই ঘটনায় যুক্ত এনসিবির ইনটেলিজেন্স আধিকারিক অমরেন্দ্রকুমার সিংহও বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিন তাঁকেও গ্রেপ্তার করেন সিবিআই কর্তারা। ইতিমধ্যেই ধৃত এই দুজনেরই কথোপকথনের বেশ কয়েকটি অডিও সিবিআইকে জমা দেন ওই অভিযোগকারী ব্যাবসায়ী বলে জানা গিয়েছে। যার ফলে এই দুজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন আইনে মামলাও শুরু করেন সিবিআই আধিকারিকরা।

গতকাল ধৃতদের আদালতে পেশ করা হয়। এদিকে এই ঘটনায় এনসিবির ওই অফিসারের নাম কি ভাবে জড়াল সেই ব্যাপারেও খতিয়ে দেখছেন এনসিবি কর্তারা। সব মিলিয়ে এখন ব্যাবসায়ীর কাছ থেকে টাকা না পাওয়ায় তাঁকে মিথ্যা ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকির জেরে শ্রীঘরে অভিযুক্ত আইনজীবী। কিন্তু তিনি বিশিষ্ট এক নেতার আইনজীবী হওয়ায় – সেই সুযোগও তোলার চেষ্টা করেছিলেন কিনা উঠছে সে প্রশ্নও। সবমিলিয়ে, বেশ বড়সড় মামলায় আটকে গেলেন ওই তরুণ আইনজীবী বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্টমহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!