এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কুমারস্বামী নাকি ইয়েদুরাপ্পা কার ভাগ্যে কর্ণাটক? সিদ্ধান্ত বৃহস্পরিবার

কুমারস্বামী নাকি ইয়েদুরাপ্পা কার ভাগ্যে কর্ণাটক? সিদ্ধান্ত বৃহস্পরিবার

আরও খানিকটা অক্সিজেন পেলেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী। আগামী বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই সকাল ১১টৈ নাগাদ কংগ্রেস-জেডিএস সরকারের আস্থাভোট হবে। বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ দেবে এইচডি কুমারস্বামীর সরকার। জোট সরকারের বৈঠকের পর এমনটাই জানিয়েছেন সিদ্দারামাইয়া।

এখনও পর্যন্ত জেডিএস-কংগ্রেসের ১৬জন বিধায়ক ও দুজন নির্দল পদত্যাগ করেছেন। যদি সকলের পদত্যাগ গৃহীত হয় তাহলে ১১৮ থেকে জোটের বিধায়ক সংখ্যা নেমে আসবে ১০০ তে এবং সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে ১১৩ নয় প্রয়োজন হবে ১০৫ জন বিধায়ক যা বিজেপির রয়েছে। এছাড়া দুজন নির্দলের সমর্থনও তাঁদের দিকে রয়েছে। ফলে ১০৭ জনকে সঙ্গে পাবে বিজেপি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

তবে বৃহস্পতিবার নয়, সোমবারই অনাস্থা প্রস্তাব এনে ভোটাভুটি চেয়েছে বিজেপি। তাদের দাবি কর্ণাটকের জেডিএস-কংগ্রেস জোট সরকার সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে। তবে বৃহস্পতিবারই আস্থা ভোট হবে বলে শেষ পাওয়া সূত্রে খবর। অনাস্থা প্রস্তাবের সঙ্গে সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারাস্বামীর পদত্যাগও দাবি করেছে বিজেপি বিধায়করা।

এদিকে, কোনও কংগ্রেস নেতার সঙ্গে কথা বলতে রাজি হচ্ছেন না বিদ্রোহী ১৪ জন বিধায়ক। মুম্বইয়ের একটি হোটেলে আপাতত রয়েছেন তাঁরা। এদিনই মুম্বই পুলিসের কাছে এই মর্মে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বিক্ষুব্ধ ১৪ জন বিধায়ক, যে তাঁদের হুমকি দিচ্ছেন মল্লিকার্জুন খাড়গে, গুলাম নবি আজাদের মতো কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা। তাঁদের নিরাপত্তা দেওয়া হোক, এমনই দাবি বিদ্রোহী বিধায়কদের।

প্রসঙ্গত,গত ১২ তারিখ সুপ্রিম কোর্ট স্পিকার রমেশ কুমারকে আগামী ১৬ তারিখ পর্যন্ত বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের পদত্যাগ গ্রহণ এবং তাঁদের বরখাস্ত করা নিয়ে কোনওরকম সিদ্ধান্ত নিতে নিষেধ করেছিল। শীর্ষ আদালতের আদেশ মেনে স্পিকার বলেছেন, মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরই তিনি বিধায়কদের পদত্যাগ বা বরখাস্ত নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!