এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > করিমপুরে মনোনয়ন দিয়ে তৃনমূলের হুঙ্কার – গতবারের থেকে লিড বাড়বে

করিমপুরে মনোনয়ন দিয়ে তৃনমূলের হুঙ্কার – গতবারের থেকে লিড বাড়বে

 

নির্বাচন ঘোষনার আগে নানা জল্পনা কল্পনা চললেও এবার করিমপুর বিধানসভায় চমক দেখাল তৃনমূল কংগ্রেস। 39 বছর পর গত 2016 সালে মহুয়া মৈত্র দাঁড়িয়ে এই বিধানসভা কেন্দ্রে তৃনমূলের জয়লাভ নিশ্চিত করেন। কিন্তু মহুয়াদেবী সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রে জয়লাভ করায় তার ছেড়ে যাওয়া এই করিমপুরে উপনির্বাচন হচ্ছে।

প্রথম থেকেই এই কেন্দ্র দখল করতে তৎপর হয়ে উঠেছিল বিজেপি। তবে তৃনমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কেন্দ্রে প্রার্থী হিসেবে বিমলেন্দু সিংহ রায়ের নাম ঘোষণা করে বিরোধীদের মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছে। সোমবার মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে বিরোধীদের কার্যত একঘরে করে দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

জানা যায়, এদিন প্রশাসক অফিসে রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র পেশ করেন তৃণমূল প্রার্থী বিমলেন্দু সিংহ রায়। এদিন এই মনোনয়নপত্র পেশের সময় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, কৃষ্ণনগরের ভূতপূর্ব বিধায়ক তথা কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র, কারামন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস, তৃণমূল বিধায়ক গৌরীশঙ্কর দত্ত, শঙ্কর সিং, তাপস সাহা, হাসানুজ্জামান, রুকবানুর রহমান, কল্লোল খান সহ অন্যান্যরা। আর সেই মনোনয়নপত্র পেশের দিন বিপুল তৃণমূল কর্মী সমর্থক নিয়ে বিরোধীদের ওপর প্রবল চাপ সৃষ্টি করেন তৃণমূলের প্রার্থী বিমলেন্দু সিংহ রায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই মনোনয়নপত্র পেশ করবে প্রথমে বেলা সাড়ে নটার সময় জমায়েত স্থলে পৌঁছন তৃণমূল প্রার্থী এবং মহুয়া মৈত্র। আর এর কিছুক্ষণ পরই সেখানে এসে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল প্রার্থীর মনোনয়ন পত্রের খুঁটিনাটি কাগজ দেখে নিয়ে সাড়ে দশটার সময় পিডব্লুডি মোড় থেকে হুডখোলা গাড়িতে করে প্রার্থীকে নিয়ে মহকুমাশাসকের অফিসের দিকে রওনা দেন। প্রচুর কর্মী সমর্থক, বিপুল ব্যান্ড নিয়ে, স্লোগান দিতে দিতে মিছিল করে তৃণমূল।

এদিকে মনোনয়নপত্র পেশের পর জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “করিমপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে আমাদের প্রার্থী গত বিধানসভা থেকে বেশি মার্জিনে জিতবে। মার্জিন বাড়ানোটাই এখন আমাদের কাছে অন্যতম চ্যালেঞ্জ। আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আদর্শে অনুপ্রাণিত। তিনি যেমন সারা বছর মানুষের সুখ দুঃখে পাশে থাকেন, তেমনই আমাদের দলের কর্মী-সমর্থকরা সারাবছর মানুষের পাশে থাকে। মানুষ আমাদের সঙ্গেই থাকবে।”

কিন্তু প্রথম দিনেই যেভাবে তৃণমূল মনোনয়নপত্র পেশের সময়েই বিরোধীদের মাত করে দিল, তাতে তার জয় কি শুধু সময়ের অপেক্ষা! এদিন এই প্রসঙ্গে করিমপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী বিমলেন্দু সিংহ রায় বলেন, “আমি জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী। আমার আগের বিধায়িকা মহুয়া মৈত্র এখানে প্রচুর উন্নয়ন করেছেন। করিমপুরের মানুষ আমাদের দুহাত ভরে আশীর্বাদ করবেন।”

তবে এই ব্যাপারে ঠিক কি বলছেন এই বিধানসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক মহুয়া মৈত্র! পূর্বসূরী হিসেবে উত্তরসূরিকে কি জয়লাভ করাতে পারবেন তিনি! এদিন এই প্রসঙ্গে মহুয়াদেবী বলেন, “করিমপুরে এই সরকারের আমলে আমরা উন্নয়ন করেছি। এখনও করিমপুরে প্রচুর কাজ হচ্ছে। তাতে করিমপুরের মানুষ যে আমাদের সঙ্গে আছে, সেই ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নির্বাচনে কে জয়লাভ করবে, তা ভোটবাক্স বলবে। কিন্তু মনোনয়নপত্র পেশের দিন যেভাবে তৃণমূল প্রার্থী বিরোধীদের মাস্টারস্ট্রোক দিলেন, তাতে এখানে তৃণমূল অনেকটাই এগিয়ে থাকল বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!